ইরানের প্রশিক্ষণ দেয়া সন্ত্রাসী চক্র গ্রেফতারের দাবি সৌদির

স্পন্দন আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইরানের অভিজাত বাহিনী আইআরজিসির কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নেয়া একদল সন্ত্রাসীকে গ্রেফতারের দাবি করেছে সৌদি আরব। এসময় সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে দেশটি। তবে সৌদির এ দাবি সম্পূর্ণ বানোয়াট বলে মন্তব্য করেছে তেহরান।

সোমবার সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সিতে (এসপিএ) প্রকাশিত বিবৃতিতে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, সম্প্রতি তারা ১০ জন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছেন, যার মধ্যে অন্তত তিনজন ইরান থেকে প্রশিক্ষণ পেয়েছেন।

চক্রটির সদস্যরা ২০১৭ সালের শেষের দিকে আইআরজিসির (ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী) ঘাঁটিতে টানা কয়েক সপ্তাহ বোমা তৈরিসহ সামরিক ও মাঠপর্যায়ের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে ওই বিবৃতিতে।

এসপিএ জানিয়েছে, সম্প্রতি সৌদির দু’টি ভিন্ন জায়গা থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে আইইডি (ইম্প্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস), কয়েক ডজন স্টানগান, গানপাউডার ও বিভিন্ন ধরনের পিস্তল ও রাইফেল। তবে ঠিক কবে ও কোথা থেকে এসব উদ্ধার করা হয়েছে তা জানানো হয়নি।

ইরানের বিবৃতি
সৌদির এই দাবিকে সম্পূর্ণ বানোয়াট বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদেহ।

মঙ্গলবার তেহরানে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, রাজনৈতিক যুক্তিবাদকে একপাশে রেখে নোংরামি প্রদর্শনের অংশ হিসেবে সৌদি শাসকরা জনগণের মতামত প্রভাবিত করতে এবং নিজস্ব ব্যর্থ প্রচেষ্টাগুলো লুকানোর উদ্দেশ্যে ইরানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদের পথ বেছে নিয়েছেন।

এ পদ্ধতিতে সৌদির কোনও লাভ হবে না, তাই এগুলো বাদ দিয়ে সততা ও বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে তাদের পথ নির্বাচনের আহ্বান জানিয়েছেন ইরানি মুখপাত্র।

সূত্র: আল জাজিরা