যশোরে নববধূর আত্মহত্যা


নিজস্ব প্রতিবেদক:
যশোর সদর উপজেলার সুজলপুর গ্রামে স্বামীর উপর অভিমানে গলায় ফাঁস দিয়ে নববধূ জান্নাতি ফেরদৌস (২০) আত্মহত্যা করেছে। সে ওই গ্রামের সোহেল রানার স্ত্রী।
স্বজনরা জানিয়েছেন, তিন মাস আগে সদর উপজেলার দায়তলা গ্রামের মহম্মদ আলীর মেয়ে জান্নাতির সাথে রঙ মিস্ত্রী সোহেল রানার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে প্রায় সময় জান্নাতি বাপের বাড়িতে থাকতো। বৃস্পতিবার সকালে আবারও বাপের বাড়ি যাওয়ার জন্যে বায়না করে। সোহেল রানা রাজি না হয়ে বলে এখন কাজের চাপ রয়েছে। কিছুদিন পর দুইজন বেড়াতে যাবেন। এ নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মাঝে বিবাদ হয়। এরই জের ধরে নিজ ঘরে আড়ার সাথে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস দেয় জান্নাতি। বিষয়টি দেখে পরিবারের রোকজন তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গভীর রাতে মারা যায় জান্নাতি। হাসপাতাল মর্গে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য রুহুল আমিন জানান, আত্মহত্যার ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। শুক্রবার লাশের ময়নাতদন্তের পর মৃতদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।