দেশের প্রথম হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম উদ্বোধন

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক : চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাংলাদেশের প্রথম হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার (১১ অক্টোবর) সচিবালয় থেকে অনলাইনে ‘ভরাশঙ্খ’ হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) চেয়ারম্যান সায়েদুর ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী৷

অনুষ্ঠানের জানানো হয়, বাংলাদেশে ইতোপূর্বে নির্মিত রাবার ড্যাম সাধারণত সেচ কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তবে আধুনিক প্রযুক্তির এই হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম দিয়ে উজান (শিকলবাহা খাল থেকে) থেকে আগত মিঠাপানি সংরক্ষণ ও ভাটিতে সাগর (শঙ্খ নদী থেকে) থেকে আসা নোনাপানির অনুপ্রবেশ প্রতিরোধ করে ফসল রক্ষা করা সম্ভব হবে। ৩৮ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৪ মিটার উচ্চতার এই ড্যামে ৫টি হাইড্রোলিক জ্যাক সংযুক্ত প্যানেল করা হয়েছে। ড্যামটি নির্মাণের ফলে আনোয়ারা উপজেলার বরুমচড়া, বারখাইন, হাইলদর, বটতলী, চাতুরী ও আনোয়ারা ইউনিয়নের তিন হাজার হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা সম্প্রসারিত হয়েছে। যেখানে উৎপাদিত খাদ্য শস্যের পরিমাণ প্রায় ১৩ হাজার ৫০০ টন এবং এর বাজার মূল্য প্রায় ২৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা। তাছাড়া শুষ্ক মৌসুমে জোয়ারের নোনাপানির ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবিলায় ১০ কিলোমিটার এলাকার ফসল ও গাছপালা রক্ষা সম্ভব হবে।

হাইড্রোলিক এলিভেটেড ড্যাম চীনের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি। এক্ষেত্রে স্টিল প্যানেল দিয়ে ড্যাম নির্মাণ করা হয় এবং প্যানেলগুলো হাইড্রোলিক শক্তির সাহায্যে ওঠানামা করানো হয়। ড্যামের প্যানেলগুলো উঠিয়ে পানি প্রবাহ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে পানি সংরক্ষণ/বন্যা নিয়ন্ত্রণ/লবণ পানির অনুপ্রবেশ রোধ করা যায়। হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম একটি নমনীয় ড্যাম। যার মাধ্যমে প্রয়োজন অনুযায়ী প্যানেল উঠিয়ে/নামিয়ে ৫/৬ মিনিটের মধ্যে পানিপ্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এছাড়া বর্ষাকালে ড্যামের প্যানেলগুলো নদী-খালের তলদেশে শুইয়ে দেয়া হয়, ফলে পানি প্রবাহ বাধাপ্রাপ্ত হয় না বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

প্রায় ২১ কোটি টাকা ব্যয়ে ড্যামের নির্মাণ কাজ করেছে চীনের সরকারি প্রতিষ্ঠান বেইজিং আইডব্লিউএইচআর করপোরেশন।

অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন জায়গায় পানি ধরে রাখার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। এ লক্ষ্যে চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাংলাদেশে প্রথম ভরাশঙ্খ হাইড্রোলিক এলিভেটেড ড্যাম নির্মাণ করা হয়েছে। এটা পাইলট হিসেবে কাজ করবে। অত্যন্ত আধুনিক প্রযুক্তি নেয়া হয়েছে। এই প্রজেক্ট সফল হলে বিএডিসি সারা দেশে এ ধরনের আধুনিক ড্যাম আরও স্থাপন করবে। এখন দেশে বর্তমানে ৬৭টি রাবার ড্যাম রয়েছে। তাই আমরা আরও উন্নতমানের এ ধরনের ড্যাম করব।’

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আমাদের জমি বাড়ছে পানি কমে যাচ্ছে। জনগণ ছিল সাড়ে সাত কোটি সেটা বেড়ে ১৭ কোটিতে দাঁড়িয়েছে। এদেরকে তো খাদ্য দিতে হবে। এ জন্য খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে আমাদের যে পানি নেমে যায় সেজন্য উপর থেকে নেমে আসা পানি ধরে রেখে কীভাবে ব্যবহার করতে পারি- তাই এই কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। ব্যবহারযোগ্য পানি দিন দিন কমে যাচ্ছে। ফলে অনেকেরই ধারণা- পানির অভাবে পৃথিবীতে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হতে পারে।