একজন কৃতি ফুটবল, ক্রিকেট ও হকি খেলোয়াড় খান মো. শফিক রতন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : খান মো. শফিক রতন। একাধারে ফুটবল, ক্রিকেট ও হকি খেলোয়াড়। একই সাথে তিনি একজন কোয়ালিফায়েড ক্রিকেট আম্পায়ার। যশোর শহরের বেজপাড়া নলডাঙ্গা রোড এলাকায় এক সভ্রান্ত ক্রীড়া অনুরাগী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। যশোরের সনামধন্য বিদ্যাপীঠ সম্মিলনী ইনসটিটিউশনে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলায় সমান কৃতিত্বের সাক্ষর রাখেন খান মো. শফিক রতন। কলেজে পড়ার সময় ফুটবল, হকি ও ক্রিকেট খেলেন তিনি। দেশ স্বাধীনের আগে জেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত ঘরোয়া লিগ ‘ইস্টার্ণ ’ ক্লাবের  হয়ে  ফুটবল, হকি ও ক্রিকেট খেলেন সাবেক এ কৃতি খেলায়াড়। ১৯৬৫-৬৬  সালে ইন্টার স্কুল ফুটবলে খেলেন এবং সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন খান মো. শফিক রতন। একই সাথে যশোর জেলা ফুটবল দলে প্রাথমিকভাবে ডাক পান তিনি। ১৯৬৭ সালে যশোর জেলা ক্রিকেট দলে খেলার সুযোগ পান কৃতি এ খেলোয়াড়। এর পর ১৯৮০ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ সময়  যশোর জেলা ক্রিকেট দলে নিয়মিত খেলেন এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন।  হকিতেও সমান পারদর্শি ছিলেন খান মো. শফিক রতন। ১৯৬৮ ও ৬৯ এ দু’বছর যশোরে জেলা পর্যায়ে হকি খেলেন। ১৯৭০ সালে ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং হয়ে হকি খেলেন তিনি। এ সময় হকি ফেডারেশনের পরিচালনায় মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে ডাক পান সাবেক এ খেলোয়াড়। ১৯৭০ সালে ঢাকা ‘ওয়ান্ডার্স ক্লাবে’ ক্রিকেট খেলায় অফার পান খান মো. শফিক রতন। তবে ডিসেম্বর মাসে ঢাকার রাজপথ মিছিলে-মিছিলে উত্তাল ছিলো। সে কারণে ঢাকার ক্লাবগুলোর সবধরনের খেলা বন্ধ হয়ে যায়। এ কারণে যশোরে ফিরে আসেন তিনি। ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ রাতে পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁ চলে যান খান মো. শফিক রতন। সেখানে মুক্তিযোদ্ধা ও শরণার্থীদের চিকিৎসার জন্য মেডিকেল ক্যাম্পে ভলেন্টিয়ার হিসেবে কাজ করেন তিনি। পরবর্তীতে যশোরে ফিরে আসেন তিনি। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ফুটবল ও হকি খেলা থেকে অবসর নেন। তবে আরও ১৫ বছর ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যান তিনি। ১৯৮০ সালে জেলা ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব শেষ বারের মত পালন করার পর প্রশিক্ষক ও ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।  ১৯৯২ সালে  জাতীয় যুব ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় যশোর জেলা দল চ্যাম্পিয়ন হয়। সে দলের ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেন খান মো. শফিক রতন।

খান মো. শফিক রতন ও শফিউর রহমান মল্লিকের প্রচেষ্টায় যশোরে ক্রিকেট আম্পায়ার্স এন্ড স্কোরার্স এসোসিয়েশন গঠন করা হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ৭ বছর এ সংগঠনের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন খান মো. শফিক রতন।

খান মো. শফিক রতন যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত ক্রিকেট, হকি ও ফুটবল লিগ খেলেছেন বিভিন্ন ক্লাবে। এর মধ্যে ইস্টার্ণ ক্লাব, ইয়াং স্টার ক্লাব,  ছাত্র সংঘ, ডায়মন্ড ক্লাব, টাউন ক্লাব, কিশোর ক্লাব, রেলগেট যুব সংঘ, প্রগতি ক্লাব ও আরএনরোড ক্রীড়া চক্র উল্লেখযোগ্য । তিনি আরএনরোড ক্রীড়া চক্রের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

উল্লেখ্য, খান মো. শফিক রতনের একমাত্র পুত্র রাশেদ পারভেজ ফুল যশোর জেলা ক্রিকেট  দলের সাবেক ক্রিকেটার এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। ফুল বিকেএসপি থেকে ‘এ’ গ্রেড প্রাপ্ত ক্রিকেট প্রশিক্ষক। এছাড়া তিনি একজন কোয়ালিফায়েড ক্রিকেট আম্পায়ার। খান মো. শফিক রতনের চাচা আব্দুল্লা খান হামদু যশোর জেলা ক্রিকেট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। ছোট ভাই খান মো. রফিক ছকু জেলা ক্রিকেট দলের খেলায়াড় ছিলেন। চাচাতো ভাই আসাদুল্লাহ খান বিপ্লব যশোরে জেলা ও খুলনা বিভাগীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার। ভাইপো হাসানুজ্জামান ঝড়– বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক খেলোয়াড়।