মান্নাত হত্যায় ভগ্নিপতি শাহ আলম ও গাড়িচালক  আল-আমিন আটক, আদালতে স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে বকচরের ব্যবসায়ী ইসরাফিল হোসেন মান্নাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি ভগ্নিপতি শাহ আলী রহমান মৃধা ওরফে শাহ আলম ও তার সহযোগী গাড়িচালক আল-আমিনকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। ঢাকায় পালিয়ে যাওয়ার সময় সোমবার গভীর রাতে হাশিমপুর থেকে তাদের আটক করা হয়। মঙ্গলবার আটক শাহ আলম ও আল-আমিনকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. সাইফুদ্দীন হোসাইন তাদের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। আটক শাহ আলম যশোর শহরের পুরাতন কসবা কাজীপাড়া মানিকতলার শফিয়ার রহমান মৃধার ছেলে এবং গাড়িচালক আল-আমিন সদর উপজেলার রামনগর খাঁ পাড়ার ছমেদ আলীর ছেলে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের এসআই মো.শামীম হোসেন জানিয়েছেন, মান্নাত হত্যাকাণ্ডের মূলহোতা ভগ্নিপতি শাহ আলম এবং অপর আসামি তার গাড়িচালক আল-আমিন যশোর থেকে ঢাকায় পালিয়ে যাচ্ছেন এমন তথ্য পান তারা। এ খবর পেয়ে তারা সোমবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে যশোর-মাগুরা সড়কের হাশিমপুর বাজারে অবস্থান নেন। এ সময় একটি প্রবোক্স গাড়িতে শাহ আলম ও আল-আমিনকে ঢাকার দিকে পালিয়ে যেতে দেখে তারা আটক করেন। তিনি আরও জানান, হত্যার পরিকল্পনাকারী শাহ আলম ও তার সহযোগী গাড়িচালক আল-আমিনকে মঙ্গলবার আদালতে সোপর্দ করা হয়। এ সময় তারা আদালতে হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে।

উল্লেখ্য, সাবেক স্ত্রী সুমি খাতুনের পরকীয়া সম্পর্ক নিয়ে সৃষ্ট দ্বন্দ্বে ২৩ অক্টোবর  নিজ ভগ্নিপতি শাহ আলমের পরিকল্পনায় খুন হন বকচরের ব্যবসায়ী ইসরাফিল হোসেন মান্নাত। তার লাশ উদ্ধার হয় শহরের কারবালা সিএন্ডবি সড়ক থেকে।