হামলা মামলার প্রতিবাদে যশোর জাপার সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক: আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ও তাদের স্বজনদের উপর হামলা, মামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে যশোর জেলা জাতীয় পার্টি। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হামলার শিকার ব্যক্তিদের নিরাপত্তা ও হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো  হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শরিফুল ইসলাম সরু চৌধুরী, সহসভাপতি আব্দুল আজিজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক মনিরুজ্জামান হীরন, বাঘারপাড়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আকতারুজ্জামান তরফদার, সাংগঠনিক সম্পাদক সোলায়মান হোসেন, প্রচার সম্পাদক আইয়ুব হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক পার্টির আহবায়ক নজরুল ইসলাম, সদস্য সচিব শেখ মুকুল হোসেন, বাঘারপাড়া যুবসংহতির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান।

লিখিত বক্তব্যে দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জহুরুল হক জহির বলেন, বাঘারপাড়ায় জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা প্রতিনিয়ত হামলা, মামলার শিকার হচ্ছে। এমনকি আমার নিজের পরিবারও হামলার হাত থেকে রেহাই পাচ্ছি না। ২০১৮ সালে জানুয়ারি মাসে বাঘারপাড়ার বন্দবিলা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা জাতীয় পার্টির প্রচার সম্পাদক আয়ুব হোসেনের ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এ সময় আয়ুব হোসেনের চাচাতো ভাই ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সহসাংগঠনিক সম্পাদক জহির মোল্লাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়। উপজেলার দোহাকুলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদুজ্জামানসহ কয়েকজন নেতাকর্মীকে বাঘারপাড়া থানার পেন্ডিং নাশকতা মামলায় গ্রেফতার করিয়ে জেলও খাটিয়েছে।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের ৮ আগস্ট বন্দবিলা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক তৈয়বুর রহমানের পিতা তফসির মোল্লাকে গভীর রাতে গলা কেটে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। হত্যার শিকার তফসির মোল্লার স্ত্রী ও সাবালক চার সন্তান থাকা সত্ত্বেও মরদেহ উদ্ধারের মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এসআই নাসিরুল হক খান বাদী হয়ে অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করা হয়। একই বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি এবং ১৭ জুলাই দুই দফা তফসির মোল্লার বাড়িতে হামলা করে ছিল সন্ত্রাসী বাহিনী।