ঝিকরগাছায় বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি পুড়ানোর  মামলার বাদীকে আসামি করে প্রতিপক্ষের মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঝিকরগাছার হরিদ্রাপোতায় বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি পোড়ানো মামলার বাদী আবুল ইসলামসহ কয়েকজনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা হয়েছে। গত ১ নভেম্বর হরিদ্রাপোতা গ্রামের শরিফুল ইসলাম খোকনের ছেলে শাহিন হোসেন বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন।

শাহিন তার মামলায় অভিযোগ করেছেন, আবুল ইসলামের পরিবারের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। গত ৩০ অক্টোবর আবুল ইসলাম ও তার ছেলেসহ ৫ জন তার বাড়িতে হামলা করে। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা করলে বিচারক অভিযোগটি গ্রহণ করে আসামিদের প্রতি সমন জারির আদেশ দিয়েছেন।

জানা গেছে, উপজেলা নির্বাচনে ঝিকরগাছার শংকরপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন হরিদ্রাপোতা গ্রামের আবুল ইসলাম। ২০১৯ সালের ২৩ মার্চ রাতে বাকড়া-বাগআঁচড়া সড়কের হরিদ্রাপোতা গ্রামের মাজার নামক স্থানে আওয়ামী লীগ ও নির্বাচন কার্যালয়ে গভীর রাত পর্যন্ত দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে নির্বাচনের কাজ করেন তিনি। ভোর রাতে পূর্বপরিকল্পিতভাবে দলীয় কার্যালয় ও নির্বাচন অফিসে আগুন লাগিয়ে দেয় দলীয় প্রতিপক্ষের লোকজন। আগুনে অফিসে থাকা বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবিসহ আসবাবপত্র পুড়ে যায়। এ ব্যাপারে আবুল ইসলাম ওই বছরের ১৯ আগস্ট ৬ জনকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন। আসামিরা হলো জাকিরুল রহমান জাকির, সাইফুজ্জামান রুনা, ফরহাদ, শাহিন হোসেন, আরিফুল ইসলাম ও শাহিনুর রহমান।

আবুল ইসলাম জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী পরাজয় বরণ করায় দলীয় প্রতিপক্ষ হামলা-মামলা শুরু করে। গত ১ নভেম্বর শাহিন হোসেন মারামারির অভিযোগে আদালতে একটি মামলা করেছেন। ওই দিন আমি যশোর ছিলাম না। এ মামলায় আমি ও আমার ছেলেসহ আরও তিনজনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার বাদী শহিন হোসেন ও স্বাক্ষীরা আওয়ামী লীগ অফিস, নির্বাচনী কার্যালয়, বঙ্গবন্ধু ও প্রধান মন্ত্রীর ছবি পোড়ানোর মামলার আসামি। শাহিন ও তার মামলার স্বাক্ষীদের বিরুদ্ধে মামলা করায় পরিকল্পিতভাবে এ মামলা করেছেন। মামলায় উল্লেখিত দিনে  আমি ও আমার ছেলে ঝিকরগাছার গ্রামের বাড়িতে ছিলাম না তা ঢাকার বাসার সিসি ফুটেজের মাধ্যমে আদালতে প্রমাণ করা যাবে।