যশোরে করোনায় আক্রান্ত ৪৩শ’ ছুঁইছুঁই, মৃত্যু ৬১


বিল্লাল হোসেন:
যশোরে নতুন করে আরও ১৫ জনের কোভিড-১৯ নভেল করোনাভাইরাস শনাক্তের মধ্য দিয়ে আক্রান্ত ৪৩শ’ ছুঁই ছুঁই। শুক্রবার পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ২শ’ ৯৩ জন। সিভিল সার্জন অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত সপ্তাহের তুলনায় করোনায় আক্রান্ত বেড়েছে।
ডা. রেহেনেওয়াজ জানিয়েছেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার থেকে ৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল আসে। তাতে ১৬ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।
এরমধ্যে ১ জন পুরাতন রোগীর ফলোআপ ফলাফল রয়েছে। আর নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ জন। আক্রান্তদের মধ্যে যশোর সদর উপজেলার ১৪ জন, ও ঝিকরগাছা উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।
যবিপ্রবির এনএফটি বিভাগের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. শিরিন নিগার জানান, জেনোম সেন্টারে যশোরের ১৬ জনের ছাড়াও মাগুরা জেলার ১৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে ৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২২ জনের করোনা পজেটিভ ও ৭১ জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে। যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, শুক্রবার পর্যন্ত জেলার ১৯৪২৮ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। ফলাফল এসেছে ১৯৫৪৩ জনের। এরমধ্যে করোনা পজেটিভ ৪২৯৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ৪০২৪ জন। এছাড়া মৃত ৬১ জনের মধ্যে যশোরে ৫০ ও খুলনার হাসপাতালে ৫ এবং ঢাকার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৬ জন মারা যান। নমুনা জমার চেয়ে ফলাফল বেশি হওয়ার প্রসঙ্গে সিভিল সার্জন জানান, বিদেশ ভ্রমণের জন্য কিছু মানুষ সরাসরি ল্যাবে নমুনা জমা দিয়েছেন। তার ফলাফলও তালিকায় যোগ করা হয়েছে। সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, গত এক সপ্তাহের তুলনায় বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা বেড়েছে। শীত বাড়ার সাথে আরও করোনা রোগীও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। ফলে জনসাধারণকে সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিকল্প নেই। তিনি সকলকে মাস্ক ব্যবহারের আহবান জানিয়েছেন।