যশোরে যৌতুক মামলায়  একজনের সাজা

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে যৌতুক মামলায় রুহুল আমিন নামে এক ব্যক্তিকে ২ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দিয়েছে একটি আদালত। সোমবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক গৌতম মল্লিক এক রায়ে এ সাজা দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত রুহুল আমিন মণিরামপুরের বসন্তপুর গ্রামের আবুল কালাম পাটোয়ারির ছেলে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১০ সালের ৩ অক্টোবর আসামি রুহুল আমিন মণিরামপুরের মাহমুদকাটি গ্রামের আবু হানিফ ব্যাপারির মেয়ে তহমিনা খাতুন শিল্পীকে বিয়ে করেন। বিয়ের সময় ১০ লাখ টাকার মালামাল দেয়া হয়। কিছু দিন যেতে না যেতে আসামি রুহুল তার স্ত্রীর কাছে যৌতুক দাবি করে আসছিল। এক পর্যায়ে রুহুলকে যৌতুকের ৩ লাখ টাকা দিলে খেদাপাড়া বাজারে মুদি দোকান দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। কয়েক বছর যেতে না যেতে রুহুল তার স্ত্রীর কাছে আরও ৩ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে নির্যাতন শুরু করে। ২০১৪ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি শিল্পীকে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে আনতে গেলে শিশু কন্যাকে রেখে শিল্পী ও তার পিতাসহ অন্যদের বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। যৌতুকের টাকা না দিলে শিল্পীকে নেবে বলে জানিয়ে দেয় আসামি রুহুল আমিন। বিষয়টি মিমাংসায় ব্যর্থ হয়ে শিল্পী যৌতুক নিরোধ আইনে আদালতে মামলা করেন। এ মামলার দীর্ঘ স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামি রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে ২ বছর সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত রুহুল আমিন পলাতক রয়েছে।