বিজয় দিবসে যশোরে কুচকাওয়াজ ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা হবে না

মিরাজুল কবীর টিটো: করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে যশোরে এ বছর বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজ ও জনসম্মুখে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা হবে না। তবে বিজয় দিবসে কেশবপুরের মধুপল্লী জাদুঘর দর্শনার্থীদের জন্য উম্মুক্ত থাকবে। গতকাল কালেক্টরেট সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বুদ্ধিজীবী দিবস ও বিজয় দিবস উদযাপন প্রস্তুতি সভায়  এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান জানিয়েছেন বিজয় দিবসে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে তপধ্বনী, পতাকা উত্তোলন, পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ কর্মসূচি থাকবে। কালেক্টরেট সভাকক্ষে ভার্চুয়াল আলোচনাসভা হবে, জোহর নামাজে মসজিদে মসজিদে  দোয়া, বিভিন্ন উপসানলয়ে প্রার্থনা, জেলখানা, হাসপাতালে, এতিমখানায় উন্নত খাবার পরিবেশন করা হবে। বিজয় দিবসে টি-২০ ক্রিকেট খেলা বন্ধ থাকবে।

সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক হুসাইন শওকত, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসান, সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন, সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা একেএম খয়রাত হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার গণি খান পলাশ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মুজহারুল ইসলাম মন্টু, জেলা জাসদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, মুক্তিযোদ্ধা রাজেক আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা আলি হোসেন মনি, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুজ্জামান, জেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল খালেক, জেলা সিনিয়র তথ্য অফিসার এহসান কবীর, শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন কুমার দাস, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সখিনা খাতুন, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক লায়লা শিরিন সুলতানা, কালেক্টরেট স্কুলের অধ্যক্ষ মোদাচ্ছের আলী প্রমুখ।