শেয়ারবাজারে সূচকে উত্থান, বেড়েছে লেনদেন

স্পন্দন নিউজ ডেস্ক :  সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচকের উত্থান হয়েছে।

মূল্য সূচকের উত্থান হলেও দুই বাজারেই লেনদেনে অংশ নেয়া যে ক’টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে প্রায় তার দ্বিগুণ। তবে ডিএসইতে মোটা অঙ্কের লেনদেন হয়েছে। এতে চার মাসের বেশি সময় পর ডিএসইতে ১২’শ কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছে।

দিনের লেনদেন শেষ সবকটি মূল্য সূচকের বড় উত্থান হলেও এদিন লেনদেনের শুরুর চিত্র ছিল ভিন্ন। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দরপতন হওয়ায় প্রথম ঘণ্টার লেনদেনে ডিএসইর প্রধান সূচক ১২ পয়েন্ট কমে যায়।

তবে সকাল ১১টার পর থেকে টানা বাড়তে থাকে সূচক। ফলে দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৩৪ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ১৩৩ পয়েন্টে উঠে এসেছে।

ডিএসইর অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ আগের দিনের তুলনায় ৮ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ১৮৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ২৩ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৩৬ পয়েন্টে উঠে এসেছে।

মূল্য সূচকের এ উত্থানের দিনে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ৯৪ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১৬৯টি এবং ৯১টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ২৪৪ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৯৭৫ কোটি ৫১ লাখ টাকা। সেই হিসেবে আগের দিনের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ২৬৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। কোম্পানিটির ১৩৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বেক্সিমকো ফার্মার ৮৩ কোটি ৪৩ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ৪৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে লাফার্জহোলসিম।

এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- আইএফআইসি ব্যাংক, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, ওরিয়ন ফার্মা, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস, ফরচুন সুজ এবং স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ৯০ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৫২ কোটি ৯ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া ২৭৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭৬টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৩৬টির এবং ৬৪টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।