ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ রবিবার, ১৬ মে , ২০২১ ● ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ শুনলে আজও গায়ের লোম শিউরে ওঠে : শেখ আফিল উদ্দিন এমপি

Published : Sunday 07-March-2021 23:16:04 pm
এখন সময়: রবিবার, ১৬ মে , ২০২১ ০৬:৪৪:৩৪ am

শার্শা ও বেনাপোল প্রতিনিধি : শার্শায় যথাযোগ্য মর্যাদায় ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে নাভারণ, শার্শা ও বেনাপোলে পৃথক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষণ ছিল বাঙালি জাতির মুক্তির মূলমন্ত্র। যে মন্ত্রে ছিল বাঙালি জাতিকে জাগ্রত করার গোলাবারুদ। সেই গোলাবারুদ বিস্ফোরিত হয়ে নিরস্ত্র বাঙালি জাতিকে মুক্তির লক্ষ্যে সশস্ত্র বাঙালিতে রূপান্তরিত করেছিল। স্বাধীনের চিন্তা-চেতনায় আগুনের লেলিহান শিখার মতো দাউ দাউ করে জ্বলতে থাকে বাংলার কৃষক, শ্রমিক, দিনমজুরসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। তাইতো সেদিন পাকিস্তানি অত্যাচারী বাহিনীর বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল বাংলার আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা। বাঙালির সেই দাবানলের সামনে টিকতে পারেনি পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী, জন্ম হয় স্বাধীন স্বার্বভৌম লাল সবুজের বাংলাদেশ।

সকালে পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচি শুরু করেন এমপি আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন। পরে উপজেলা চত্বরে স্থাপিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। দলীয় নেতাকর্মী সহ পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন, ছাত্রলীগ, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা, সহাকারী কমিশনার (ভূমি) রাশনা সামিন মিথি, শার্শা থানা পুলিশের ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম, বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের ইনচার্জ মামুন খান। 

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ শুনলে আজও গায়ের লোম শিউরে ওঠে। বিশ্বের ইতিহাসে কোনো নেতা এমন ভাষণ দিয়েছেন বলে তার কোন নজীর নেই। সেদিন বঙ্গবন্ধু তাঁর ভাষণে বলেছিলেন, “এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম”। “তোমাদের যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে প্রস্তুত থাকো, শত্রুর মোকাবিলা করতে হবে।” যে ভাষণের মধ্য দিয়েই মুক্তিযুদ্ধের সামগ্রিক দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন তিনি। সেই ভাষণ ছিলো একটি অগ্নিমশাল। যেকারণে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ কেবল দেশের মানুষের হৃদয়ে কড়া নাড়েনি, জাতিসংঘে বিশ^ ঐতিহ্যের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু বলেন  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে সকলকে সহায়তা কামনা করেন। এছাড়া একইসাথে সরকার বিরোধী বিভিন্ন চক্রান্ত ও অপপ্রচার থেকে সাবধান থাকার আহবান জানান তিনি।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফ্ফর হোসেন, ইউপি চেয়রিম্যান হাদিউজ্জামান, হোসেন আলী, আব্দুর রশিদ, ফিরোজ আহমেদ টিঙ্কু, ইলিয়াছ কবির বকুল, আয়নাল হক, শার্শা সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মোরাদ হোসেন, লক্ষনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, ডিহি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুর রহমান, ছাত্রলীগ সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার প্রমুখ।

বিকেলে বেনাপোল পোর্ট থানার বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপিত ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উদযাপন ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চুড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তি হওয়ায় আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠানে শান্তির বেলুন উড়িয়ে এবং কেক কেটে অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন আফিল উদ্দিন।

বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত ৭ই মার্চের মঞ্চে

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল কাস্টম হাউসের কমিশনার আজিজুর রহমান, শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলীফ রেজা, সহকারী কর্মকর্তা (ভূমি) রাসনা শারমিন মিথি, বেনাপোল বন্দর পরিচালক মামুন কবির, বেনাপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ বজলুর রহমান, শার্শা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান, ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল পোর্ট থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আজিজুর রহমান, (তদন্ত) রাসেল সরোয়ার, উপপুলিশ পরিদর্শক মাসুম বিল্লাহ, রোকন উদ্দিন, রিয়েল, মফিজুর রহমানসহ পোর্ট থানা পুলিশের সকল কর্মকর্তা, পুলিশ সদস্য ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।