ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ● ১২ আশ্বিন ১৪২৮

বাঘারপাড়ায় ধর্মীয় পরিচয় গোপন করে বিয়ে, অভিযুক্ত শিমুল

Published : Wednesday 28-July-2021 21:57:45 pm
এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর , ২০২১ ০৪:৪০:৫৩ am

 নিজস্ব প্রতিবেদক: ধর্মীয় পরিচয় গোপন ও প্রতারণার মাধ্যমে বিয়ে করার মামলায় প্রাণ আরএফএল কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি শিমুল বিশ্বাসকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে যশোরের বাঘারপাড়া থানা পুলিশ। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ না পাওয়ায় এ মামলার অপর চার আসামির অব্যাহতির আবেদন করা হয়েছে। মামলার তদন্ত শেষে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ শাহিনুর রহমান। অভিযুক্ত শিমুল বিশ্বাস বাঘারপাড়ার নলডাঙ্গা গ্রামের পরিতোষ বিশ্বাসের ছেলে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৬ সালে সাতক্ষীরা এলাকায় প্রাণ আরএফএল কোম্পানির এসআর হিসেবে কর্মরত ছিলেন শিমুল বিশ্বাস। ওই সময় সাতক্ষীরা সদরের মধ্যকাটিয়া গ্রামের মৃত ইউসুফ খানের মেয়ে নাজনিন আক্তার প্রিয়ার সাথে পরিচয় হয়। শিমুল নিজেকে মুসলিম পরিচয় দিয়ে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ওই বছরের ১৭ মার্চ শিমুল তাকে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিয়ে করে সংসার শুরু করেন। সর্বশেষ হয়ে ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ায় বদলী হয়ে সংসার করতে থাকেন। এর মধ্যে শিমুল তার স্ত্রীর সঞ্চয়ের আড়াই লাখ টাকা নিয়ে নেন। এভাবে ৫ বছর সংসার করার পর শিমুল বিশ্বাস নানা অজুহাতে কলহ সৃষ্টি করে প্রিয়ার সাথে ঝগড়া করতে থাকেন। একপর্যায়ে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে প্রিয়া তার পিতার বাড়ি চলে আসেন । এ সুযোগে শিমুল অন্যাত্র বদলী হয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করে সংসার করতে থাকে। প্রিয়া বিষয়টি জানতে পেরে শিমুল বিশ্বাসের ঠিকানা যোগাড় করে গ্রামের বাড়ি বাঘারপাড়ার নলডাঙ্গা এসে জানতে পারে শিমুল বিশ্বাস হিন্দু ধর্মাবলম্বী। শিমুল বিশ্বাস তাকে বিয়ে ও টাকা নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন। এছাড়া অপর আসামিরা তাকে নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেন। নাজনিন আক্তার প্রিয়া প্রতারণার শিকার হয়ে চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি শিমুল বিশ্বাসসহ ৫ জনকে আসামি করে বাঘারপাড়া থানায় মামলা করেন। এ মামলার তদন্ত শেষে সাক্ষীদের বক্তব্যে ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় শিমুল বিশ্বাসকে অভিযুক্ত করে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ না পাওয়ায় শিমুলের পিতা পরিতোষ বিশ্বাস, মা দিপালী রানী, বিনয় বিশ্বাস ও তাহের হোসেনকে অব্যাহতির আবেদন করা হয়েছে। চার্জশিটে আসামি শিমুল বিশ্বাস জামিনে আছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।