ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ রবিবার, ১৬ মে , ২০২১ ● ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

বেনাপোল সীমান্তের ত্রাস রাশেদ কারাগারে

Published : Thursday 04-March-2021 22:07:53 pm
এখন সময়: রবিবার, ১৬ মে , ২০২১ ০৬:২২:৩৩ am

শেখ কাজিম উদ্দিন, বেনাপোল : বেনাপোল সীমান্তের ত্রাস বহু অপকর্মের হোতা বিস্ফোরকসহ একাধিক মামলার আসামি রাশেদ বাহিনী প্রধান রাশেদ আলী (৪২) আটক হয়েছে। বুধবার রাত ১২ টার দিকে সে মদ্যপ অবস্থায় বেনাপোল হাইওয়ে ও বাইপাস সড়কের তিন রাস্তার মোড়ে পুলিশি অভিযানের সময় পুলিশের সাথে অশোভন আচরণের অভিযোগে আটক করা হয়। আটক রাশেদ আলী বেনাপোল পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও দিঘিরপাড় গ্রামের আকতার রহমানের ছেলে। তাকে আদালতে সোপর্দ করা হলে বিচারক তার জামিন শুনানির দিন ধার্য করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বুধবার রাতে পুলিশের অভিযানে কর্মরত থাকা এসআই সোহেল রানা জানান, ওই রাতে বেনাপোল-যশোর হাইওয়ে সড়ক ও বাইপাস সড়কের মোহনা, তিন রাস্তার মোড়ে পুলিশের অভিযানের একপর্যায়ে রাত ১২ টার দিকে রাশেদ আলী নামে আটক ব্যক্তি মদ্যপ অবস্থায় প্রাইভেটকার ড্রাইভ করে বাইপাস সড়ক হয়ে হাইওয়ে রোডের দিকে আসছিলো। এসময় তাকে দাড়ানোর জন্য গতিরোধ করলে সে ক্ষমতা দেখিয়ে পুলিশের সাথে অশোভন আচরণ করে।  একপর্যায়ে তার আচরণ সীমারেখা ছাড়িয়ে যাওয়ায় তাকে আটকপূর্বক থানায় নিয়ে আসি এবং তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে একটি মামলা করি।

বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খান বলেন, রাতে রাশেদ আলী মাতাল অবস্থায় পুলিশের কর্তব্যরত কাজে অসন্তোষ প্রকাশ করে অশোভন আচরণ করায় তাকে আটকপূর্বক তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়ে মামলা শেষে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে যশোর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ইতিপূর্বেও তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগে ৮ টি মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।

রাশেদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানার মামলা নম্বর হলো-৩৪, তারিখ-২৬.০৮.২০০৯। মামলা নং- ২৫, তারিখ- ২৫.১০.১১। মামলা নং-১৪, তারিখ-০৬.০১.২০১৫। মামলা নং-২৯, তারিখ-  ১০.০৫.২০১৫। মামলা নং-৩০, তারিখ-১০.০৫.২০১৫, ১৯০৮ সালের বিস্ফোরক উপাদানাবলী আইনের ৩/৪/৬। মামলা নং-৩১, তারিখ-১০.০৫.২০১৫, ১৯৭৪ সালের স্পেশাল পাওয়ারস এ্যাক্ট এর ১৫(১)/১৬(২)। মামলা নং-১০, তারিখ-০৬.০৪.২০১৫। মামলা নং-৪৬, তারিখ- ২৮.১০.২০১৯।

এদিকে, রাশেদ আলী আটক হওয়ায় বেনাপোল পৌর এলাকার জনমনে খুশির বন্যা বইছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানান, বেনাপোল পৌর মেয়রের সকল অপকর্মের আস্থাভাজন ক্যাডার রাশেদ আলী। তার রয়েছে একটি মাদকাশক্ত দাঙ্গাবাহিনী।