ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ সোমবার, ২১ জুন , ২০২১ ● ৬ আষাঢ় ১৪২৮

যশোর বিমানবন্দর অথবা বিশ্ববিদ্যালয় শহিদ মশিয়ূর রহমানের নামে করার দাবি

Published : Saturday 24-April-2021 20:53:21 pm
এখন সময়: সোমবার, ২১ জুন , ২০২১ ০৪:৫৩:১৫ am

নিজস্ব প্রতিবেদক :
শহিদ মশিয়ূর রহমানের ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে যশোরে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনা রোধে চলমান লকডাউনের কারণে শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) রাতে আলোচনাসভায় নেতৃবৃন্দ ভার্চুয়ালি যুক্ত হন।
অনুষ্ঠান থেকে যশোর বিমানবন্দর অথবা যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শহিদ মশিয়ূর রহমানের নামে নামকরণের দাবি জানানো হয়।
বিষয়টি জাতীয় সংসদে উত্থাপনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে আনবেন বলে জানান আলোচনাসভার সম্মানিত আলোচক পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য এমপি। এ সময় মণিরামপুরে নির্মাণাধীন অডিটোরিয়াম শহিদ মশিয়ূর রহমানের নামে করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।
শহিদ মশিয়ূর রহমান স্মৃতি সংসদের আয়োজনে আলোচনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন মশিয়ূর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র আলী কদর মোহাম্মদ শামসুজ্জামান।
আলোচক হিসেবে আরও অংশ নেন প্রাদেশিক ও গণপরিষদ সদস্য স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদ সদস্য, শহিদ মশিয়ূর রহমানের সঙ্গে যশোর ক্যান্টনমেন্টে বন্দি এবং নির্যাতনের শিকার হওয়া অ্যাডভোকেট মঈনুদ্দিন মিয়াজী, শহিদ মশিয়ূর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র আমেরিকার মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডক্টর মাহমুদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনির।
মনির তার বক্তব্যে বলেন, শহিদ মশিয়ূর রহমান যশোরবাসীর গর্ব। আমি সংসদ সদস্য থাকাকালীন ঝিকরগাছা শহিদ মশিয়ূর রহমান ডিগ্রি কলেজ জাতীয়করণ করেছি। তার গ্রামে শহিদ মশিয়ূর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও আলিম মাদরাসায় প্রায় ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন চারতলা ভবন ও তার গ্রামের বুক চিরে চৌগাছা-চুড়ামনকাটি আঞ্চলিক মহাসড়ক ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে উন্নয়নের ব্যবস্থা করেছিলাম। আমার বাবার নেতার প্রতি শ্রদ্ধাস্বরূপ এ কাজটুকু করতে পেরে প্রশান্তি অনুভব করি।
আলোচনায় আরও অংশ নেন, সুইডেন প্রবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা লাল্টু, আমেরিকান প্রবাসী জাকির হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী চিম্ময় সাহা, আমেরিকান প্রবাসী ও মুক্তিযুদ্ধকালীন ঝিকরগাছা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ, ঝিকরগাছা সরকারি শহিদ মশিয়ূর রহমান ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক বিপ্লব কুমার সেন, চৌগাছা সরকারি ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ফিরোজ, সিংহঝুলী শহিদ মশিয়ূর রহমান হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক, জেলা তথ্য অফিসার ও মশিয়ূর নগরের সন্তান এসএম কবীর, যশোর আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহীন মল্লিক, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবি সিদ্দি, সিংহঝুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তহমিনা খাতুন, শহিদ মশিয়ূর রহমানের ভাইজি ও শহীদকন্যা হেলেনা আক্তার পপি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক মুরাদ-উদ্দৌলা মিঠু।
উল্লেখ্য, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে একমাত্র পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য (এমএনএ) শহিদ মশিয়ূর রহমান, পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ২৫ মার্চ ১৯৭১ সেই ভয়াল কালরাতে যশোরের সিভিলকোর্ট মসজিদ সংলগ্ন নিজ বাসভবন ‘সিংহঝুলি কুটির’ থেকে তাকে গ্রেফতার করে যশোর ক্যান্টনমেন্টে নিয়ে প্রায় এক মাস নির্মম, নিষ্ঠুর ও পৈশাচিকভাবে নির্যাতন করে। ১৯১৭ সালে জন্মগ্রহণকারী এই মানুষটিকে মাত্র ৫৪ বছর বয়সে ১৯৭১ সালের ২৩ এপ্রিল হত্যা করা হয়।