সন্ত্রাসী হামলার শিকার সাংবাদিক শিকদার খালিদ

এখন সময়: বুধবার, ৩০ নভেম্বর , ২০২২ ২৩:০৫:১০ pm

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন দৈনিক লোকসমাজের বার্তা সম্পাদক ও দেশ রুপান্তরের জেলা প্রতিনিধি শিকদার খালিদ। জ্ঞান ফিরে আসার পর কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার পর তার কাছ থেকে সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে প্রকৃত তথ্য পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার রাতে যশোর শহরতলীর বিরামপুর কালীতলা এলাকায় হামলার ঘটনা ঘটে। তবে রাতে চাউর হয় খালিদ মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়েছিলেন।

সাংবাদিক শিকদার খালিদ জানান, বিরামপুর কালীতলা এলাকার মৃত আব্দুল জলিল মোল্লার ছেলে লিটন ওরফে হাঁস লিটন বিভিন্ন সন্ত্রাসীমূলক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত। তার সাথে শিকদার খালিদের পূর্ব হতে শত্রুতা ও দ্বন্দ্ব চলে আসছে। গত শুক্রবার রাতে হাঁস লিটন জরুরি কথা আছে বলে মোবাইল ফোন করে তাকে তার বাড়িতে যেতে বলে। পরে তিনি সেখানে যান এবং বাড়ির ছাদে কথা বলার এক পর্যায়ে হাঁস লিটনের নেতৃত্বে সহযোগী টাইলস মিস্ত্রি তৌহিদ তার ওপর আচমকা আক্রমণ করে। টাইলসমিস্ত্রি তৌহিদের বাড়ি শহরের বারান্দী মোল্লাপাড়ায়।

তিনি বলেন, হাঁস লিটন ধারালো দা দিয়ে তাকে কুপিয়ে জখম করে। আর তার সহযোগী তৌহিদ লোহার রড দিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর জখম অবস্থায় তিনি পড়ে গেলে এ সময় হাঁস লিটনের স্ত্রী জাহানারা তার কাছে থাকা নগদ ৫০ হাজার টাকা ও ১টি স্যামসং মোবাইল ফোন সেট কেড়ে নেয়। এছাড়া হাঁস লিটনের সহযোগী তৌহিদ তার গলায় থাকা ১২ আনা ওজনের একটি সোনার চেইন ছিনিয়ে নেয়।

শিকদার খালিদ বলেন, তিনি সাংবাদিকতা করেন জানতে পেরে গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে গুম করার উদ্দেশ্যে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলো হামলাকারীরা। কিন্তু তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় তারা। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।

তিনি আরও বলেন, সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ৩ জনকে আসামি করে কোতয়ালি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। অভিযুক্তরা হলো, হাঁস লিটন, তার স্ত্রী জাহানারা ও সহযোগী তৌহিদ।

এ বিষয়ে কোতয়ালি থানার ওসি তাজুল ইসলাম বলেছেন, ঘটনা সম্পর্কে তিনি অবগত। এই বিষয়ে সাংবাদিকের পক্ষ থেকে অভিযোগ দেয়া হলে পুলিশ তা মামলা হিসাবে গ্রহণ করবে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাঁস লিটনের ছেলে মেয়ে জামাই ভাইসহ ৫জনকে থানায় আনা হয়। কিন্তু ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টতা না পাওয়ায় তাদের ছেড়ে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওসি।

এদিকে, শিকদার খালিদের উপর হামলার ঘটনায় মৈত্রী ভলান্টিয়ার্স এর আহ্বায়ক অ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু ও সদস্য সচিব মামুনুর রশীদ তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। নেতৃবৃন্দ দ্রুততম সময়ের মধ্যে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

অপরদিকে, খালিদের উপর নৃশংস এ হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন প্রেসক্লাব যশোর সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও সম্পাদক এস এম তৌহিদুর রহমান।
এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ দ্রুততম সময়ের মধ্যে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বলেন, অন্যথায় যশোরের সাংবাদিক সমাজ রাজপথে কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে।