শরণখোলায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

এখন সময়: শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর , ২০২২ ২১:৩৪:৪৭ pm

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : বাগেরহাটের শরণখোলায় কুলসুম আক্তার সাথী (১৯) নামে তিন মাসের অন্তঃসত্ত¡া গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে শরণখোলা থানা পুলিশ। রোববার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের পান্না ফরাজির বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের বাসিন্দা পান্না ফরাজির ছেলে মেকানিক আরিফ ফরাজির সাথে এক বছর আগে বিয়ে হয় কুলসুমের। নিহতের ফুফাতো ভাই আব্দুর রহিম জানান, বিয়ের পর থেকেই শাশুড়ি ও ননদের সাথে তার বনিবনা হচ্ছিল না। সাত-আট মাস আগে স্বামী-শাশুড়ি ও ননদ মিলে তাকে বিভিন্ন অজুহাতে মারধর করে আহত করে। ওই সময় তাকে শরণখোলা হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে খুলনা মেডিকেল কলেজেও চিকিৎসা দেয়া হয়। এভাবে বিভিন্ন সময় তার ওপর চালানো হতো শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। 
শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে আরিফ ফোন করে আব্দুর রহিমকে জানায় কুলসুম গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সাথে সাথে তারা ওই বাড়িতে গিয়ে কুলসুমের লাশ নিচে পড়ে থাকতে দেখেন। তার গলার দুই পাশে দাগ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে গলা টিপে মেরে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। কুলসুম আক্তার তিন মাসের অন্তঃসত্ত¡া ছিলেন। এ ব্যাপারে নিহতের স্বামী আরিফ ফরাজী বলেন, শরিবার রাত ১১টার দিকে বাজার থেকে বাড়িতে ফিরে বাথরুমে যাই। এর পর ঘরে ঢুকে কুলসুমকে দক্ষিণ পাশের বারান্দায় চালের আঁড়ার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখি। তবে তাকে কোনো প্রকার নির্যাতন করা হয়নি বলে তিনি দাবি করেন। 
শরণখোলা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুব্রত কুমার জানান, খবর পেয়ে আরিফ ফরাজির বাড়ি থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। পরে সুরতহাল রিপোর্ট সম্পন্ন করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর আসল রহস্য জানা যাবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।