মহম্মদপুরে বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা, সংঘর্ষে আহত ৩০

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ১৫:৫০:১৫ pm

সুব্রত সরকার, মহম্মদপুর (মাগুরা) : মাগুরার মহম্মদপুরে কানুটিয়া বাজারের মধ্যে আতর লস্কর নামের ৭০ বছরের বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। বোরবার বিকেলে উপজেলার কানুটিয়া বাজারে আতর লস্কর বাজার সদাই করা অবস্থায় প্রতিপক্ষের লোকজন পরিকল্পিতভাবে হামলা করে তাকে কুপিয়ে জখম করে। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আতর লস্করের আশস্খাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা নেওয়ার পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। নিহত আতর লস্কর বিনোদপুর ইউনিয়নের উরুড়া গ্রামের মৃত যদন লস্করের ছেলে। বৃদ্ধের উপর হামলার বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে পরবর্তীতে দ’ুপক্ষের সমর্থকরা সংগঠিত হয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। তিন ঘন্টা ব্যাপি সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৩০জন আহত, একটি মোটরবাইকে আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয় এবং কয়েকটি বাড়িঘরে ভাঙচুর করে ।     
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত রোববার বিকেলের দিকে আতর লস্কর বাড়ির পাশের কানুটিয়ায় সাপ্তাহিক হাটে বাজার করছিলেন। তিনি হাটের ভিতরে সবজি কেনাকাটা করছিলেন। এমন সময় পিছন থেকে পূর্বশত্রæতার জের ধরে কামরুল মোল্যার নেতৃত্বে ৬ থেকে ৭ সাতজন মোটরসাইকেলে এসে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তার ওপর হামলা চালিয়ে  এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে।  স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাগুরা হাসপাতালে ভর্তি করে। 
আতর লস্করের উপর হামলার বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দু’পক্ষের সমর্থকরা সংগঠিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। তিন ঘন্টা ধরে চলে সংঘর্ষ। পরে পুলিশ খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়। আহত সবাই প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে  পলাতক  রয়েছে। 
নিহতের বড় ছেলে উজ্জল লস্কর বলেন, আমার বাবা গ্রামে কোন দলাদলি করে না। গ্রামে ক্ষমতাসীন দলের দুই নেতার মধ্যে দীর্ঘদিন আধিপত্য নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। গত ইউপি নির্বাচনে মেম্বর প্রার্থী নিয়ে দ্ব›দ্ব চরমে পৌছায়। তুচ্ছ ঘটনায় শনিবার ৩ আগস্ট গ্রামের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই বিরোধের জেরে তাঁর বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কয়েকবার তাঁকে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। প্রকাশ্যে দিনের বেলা হাটের মধ্যে শত শত লোকের সামনে আমার বাবাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তিনি তার বাবার হত্যার সাথে যারা জড়িত তাদের দ্রুত গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান।
মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: কলিমুল্লাহ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে যে গ্রাম্য দলাদলি ও পূর্বশত্রæতার জেরে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাগুরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
মহম্মদপুর থানার ওসি অসীত কুমার রায় এ প্রতিনিধিকে বলেন, এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নিহতের পরিবার একটি মামলা করবে বলে জানিয়েছে। মামলা হলে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরবর্তী সংঘর্ষ এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।