# সুস্থভাবে জীবন-যাপন করতে খেলাধুলার বিকল্প নেই : প্রতিমন্ত্রী স্বপন

যশোরে শীতকালীন জাতীয় ক্রীড়ার চূড়ান্ত পর্বের পর্দা নামলো

এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি , ২০২৪, ০২:০৪:৫১ পিএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক : যশোরে পুরস্কার বিতরণ ও সনদপত্র বিতরণের মধ্য দিয়ে পর্দা নামলো ৫১ তম শীতকালীন স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের। মঙ্গলবার সমাপনী দিনে বিভিন্ন ইভেন্টে ব্যাক্তিগত ও দলগত পুরস্কার বিতরণ করা হয়। যশোর শামস্-উল-হুদা স্টেডিয়ামে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য এমপি বলেন, খেলাধুলা সমাজের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড থেকে যুবসমাজকে দূরে রাখে। এ ধরনের প্রতিযোগিতা আয়োজনের মাধ্যমে সারাদেশে খেলাধুলায় অগ্রণী ভূমিকা রাখবে। গ্রাম-বাংলার ছোট ছোট টুর্নামেন্ট থেকে একদিন বাংলাদেশ জাতীয় দলের খেলোয়াড় তৈরি হবে। ভালো খেলার মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্বমঞ্চে আরও শক্তিশালী করে তুলবে। লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা মানুষের মনকে সচেতন করে। প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, সুস্থভাবে জীবন-যাপন করতে খেলাধুলার বিকল্প নেই। খেলাধুলার মাধ্যমে মনটাকে উৎফুল্ল রাখা যায়। যার ফলে বৃদ্ধি পায় শিক্ষার হার। এ ধরনের খেলাধুলার আয়োজন করে আমাদের ভবিষৎ প্রজন্মকে সুস্থ, সবল ও সৎ পথে রাখা যায়। তাই দেশের খেলাধুলাকে বহুদূর এগিয়ে নিতে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে এসব খেলাধুলায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার আহবান জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন। সভাপতিত্ব করেন যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের সচিব প্রফেসর আব্দুল খালেক সরকার। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা ক্রীড়া সমিতির সম্পাদক আক্তারুজ্জামান ভূঞা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম। অ্যাথলেটিকসে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব দেখিয়েছে পদ্ম অঞ্চল।  তাদের পয়েন্ট ২০১ । রানার্স আপ গোলাপ অঞ্চলের পয়েন্ট ২০০। এছাড়া বালক বড় গ্রুপে ব্যক্তিগত চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন পদ্ম অঞ্চলের জামালপুর জেলার ঝাড়কাটা এম এল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আমির হামজা। রানার্স আপ হয়েছেন স্বাগতিক গোলাপ অঞ্চলের যশোর জেলার রায়পুর স্কুুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী চয়ন কুমার বিশ্বাস। বালিকা বড় গ্রুপে ব্যক্তিগত চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন গোলাপ অঞ্চলের লোহাগড়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সামিয়া খাতুন, রানার্স আপ হয়েছেন বকুল অঞ্চলের নোয়াখালি জেলার আহম্মাদিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের তানজিলা আক্তার তানিশা। বালক মধ্যম গ্রুপে ব্যাক্তিগতভাবে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন চাঁপা অঞ্চলের পাবনা জেলার সোনাতলা উচ্চ বিদ্যালয়ের রোহান হোসেন, রানার্স আপ হয়েছেন পদ্ম অঞ্চলের ময়মনসিংহ জেলার বেগুনবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের মেহেদী হাসান সিফাত। বালিকা মধ্যম গ্রুপে পদ্ম অঞ্চলের নরসিংদি জেলার  খুদি মাহমুদ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবিনা আক্তার রুবি শীর্ষস্থান ও একই অঞ্চলের কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শাহিনুর আক্তার হয়েছেন রানার্স আপ। এছাড়া দলগত ইভেন্টের মধ্যে ছাত্র ভলিবলে বকুল অঞ্চলের বান্দরবন জেলার কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজ নয় পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। রানার্স আপ হয়েছে গোলাপ অঞ্চলের যশোর জেলার কায়েমকোলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়। ছাত্রী ভলিবলে বকুল অঞ্চলের বান্দরবন জেলার কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজ নয় পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান ও চাঁপা অঞ্চলের পঞ্চগড় জেলার ভেলকুগছ প্রামানিক ভিপি উচ্চ বিদ্যালয় ছয় পয়েন্ট নিয়ে রানার্স আপ হয়েছে। ছাত্র হকিতে নয় পয়েন্ট সংগ্রহ করে চাঁপা অঞ্চলের রাজশাহী জেলার শহিদ মামুন মাহামুদ পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ চ্যাম্পিয়ন ও পদ্ম অঞ্চলের ঢাকা জেলার আরমানিটোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ছয় পয়েন্ট নিয়ে রানার্স আপ হয়েছে। ছাত্রী হকিতে পদ্ম অঞ্চলের কিশোরগঞ্জ জেলার আরজত আতরজান উচ্চ বিদ্যালয় সাত পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন ও পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে রানার্স আপ হয়েছে গোলাপ অঞ্চলের বরিশাল জেলার শের-ই বাংলা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়। বাস্কেটবল ছাত্র গ্রুপে বকুল অঞ্চলের চট্টগ্রাম জেলার সেন্ট প্লাসিডস স্কুল এন্ড কলেজ নয় পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন ও ছয় পয়েন্ট নিয়ে রানার আপ হয়েছে গোলাপ অঞ্চলের খুলনা জেলার খুলনা জিলা স্কুল। ছাত্রী বিভাগে বকুল অঞ্চলের বান্দরবন জেলার কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজ তিন ম্যাচে নয় পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন ও গোলাপ অঞ্চলের যশোর জেলার প্রগতি বালিকা বিদ্যালয় রানার্স আপ হয়েছে। তাদের সংগ্রহ ছয় পয়েন্ট। ছাত্রী টেবিল টেনিসের এককে বকুল অঞ্চলের বান্দরবন জেলার কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজ নয় পয়েন্ট পেয়ে চ্যাম্পিয়ন ও গোলাপ অঞ্চলের নড়াইল জেলার নড়াইল সরকারি বালিকা বিদ্যালয় ছয় পয়েন্ট পেয়ে রানার্স আপ হয়েছে। ছাত্রী দ্বৈত প্রতিযোগিতায় বকুল অঞ্চলের কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজ পূর্ণ নয় পয়েন্ট পেয়ে শীর্ষস্থান ও গোলাপ অঞ্চলের নড়াইল জেলার নড়াইল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ছয় পয়েন্ট পেয়ে রানার্স আপ হয়েছে। টেবিল টেনিস একক ছাত্র বিভাগে সব অঞ্চলের সংগ্রহ ছিল ছয় পয়েন্ট করে। ফলাফল নির্ধারণ করা হয় সেট জয়ের ভিত্তিতে। সে হিসেবে গোলাপ অঞ্চলের নড়াইল জেলার নড়াইল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন ও বকুল অঞ্চলের বান্দরবন জেলার কোয়ান্টাম কসমো স্কুল এন্ড কলেজ রানার্স আপ হয়েছে। দ্বৈত বিভাগে বকুল অঞ্চলের বান্দরবল জেলার কোয়ান্টাম কসমো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নয় পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন ও ঢাকা জেলার সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ছয় পয়েন্ট সংগ্রহ করে হয়েছে রানার্স আপ। ব্যাডমিন্টন ছাত্রী এককে গোলাপ অঞ্চলের খুলনা জেলার সরকারি করোনেশন বালিকা বিদ্যালয় নয় পয়েন্ট পেয়ে চ্যাম্পিয়ন ও ছয় পয়েন্ট পেয়ে চাঁপা অঞ্চলের পাবনা জেলার দারুল উলুম মারকাযিয়া দাখিল মাদ্রাসা রানার্স আপ হয়েছে। দ্বৈত বিভাগে গোলাপ অঞ্চলের যশোর জেলার সেবা সংঘ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় নয় পয়েন্ট পেয়ে চ্যাম্পিয়ন ও চাঁপা অঞ্চলের পাবনা জেলার দারুল উলুম মারকাযিয়া দাখিল মাদ্রাসা রানার্স আপ হয়েছে। তারা সংগ্রহ করেছে ছয় পয়েন্ট। ব্যাডমিন্টন একক ছাত্র বিভাগে চাঁপা অঞ্চলের দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলা কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন ও পদ্ম অঞ্চলের ময়মনসিংহ জেলার গর্ভমেন্ট ল্যাবরেটরি হাই স্কুল হয়েছে রানার্স আপ। দ্বৈত বিভাগে গোলাপ অঞ্চলের বাগেরহাট জেলার বাংলাদেশ নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ শীর্ষস্থান ও বকুল অঞ্চলের সিলেট জেলার হবিগঞ্জ হাই স্কুল এন্ড কলেজ রানার্স আপ হয়েছে। ছাত্র ও ছাত্রী ক্রিকেটে পদ্ম অঞ্চলের ঢাকা জেলার কদমতলা পূর্ব বাসাবো স্কুল এন্ড কলেজ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ছাত্র ক্রিকেটে গোলাপ অঞ্চলের নড়াইল জেলার নড়াইল সরকারি হাই স্কুল ও ছাত্রী বিভাগে গোলাপ অঞ্চলের ঝিনাইদহ জেলার ফজর আলী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ হয়েছে রানার্স আপ। জাতীয় স্কুল মাদ্রাসা কারিগরি শিক্ষা সমিতির আয়োজনে ও যশোর শিক্ষা বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত এ প্রতিযোগিতায় ৮২৪ জন ক্রীড়াবিদ অংশ নেন। এর মধ্যে ছাত্র ৪৪০ ও ছাত্রী ৩৮৪ জন। বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল,মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা ক্রীড়া সমিতির আয়োজনে ও যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ব্যবস্থাপনায়  অনুষ্ঠিত হলো এ প্রতিযোগিতা।