যশোরে পাল্টাপাল্টি হামলায় নারীসহ আহত ১০

এখন সময়: বুধবার, ১৭ এপ্রিল , ২০২৪, ০৬:৩০:০১ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে পাল্টাপাল্টি হামলায় নারীসহ ১০ জন জখম হয়েছে। এক পক্ষ আরেক পক্ষকে লোহার রড ও হাতুড়িপেটায় জখম করে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১২ টার দিকে সদর উপজেলার ভায়না ফতেপুরে এ ঘটনাটি ঘটে। আহতরা হলেন ভায়না ফতেপুর গ্রামের মৃত আমিন উদ্দিন মোল্যার দুই ছেলে মিকাইল হোসেন (৫২), আজমাইল মোল্যা (৪৫), ইসমাইল মোল্যার দুই ছেলে সুমন হোসেন (৩৫), মাহবুব আলম (৩২), বদরুল হায়দারের স্ত্রী রুপা আক্তার (৪০) ও প্রতিপক্ষের একই গ্রামের মৃত হাকিম মোল্যার ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪৮), সাইফুল ইসলামের স্ত্রী রেহেনা খাতুন (৪৫), ছেলে শাহিন (২৫), শাকিল (২২) ও মৃত হাকিম মোল্যার ছেলে আব্দুল ওয়াদুদ (৬০)। তারা যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হামলার কারণ হিসেবে দুই পক্ষ ভিন্ন দাবি করেছেন।
আহত ইসমাইল মোল্যার স্বজনরা জানিয়েছেন, ভায়না ফতেপুর গ্রামে একটি কিশোর গ্যাং গড়ে উঠেছে। তারা ফতের মুদি দোকানের সামনে গভীর রাত পর্যন্ত আসর বসিয়ে প্রকাশ্যে মাদক সেবন করে। এতে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। মাদক সেবনে নিষেধ করায় চক্রের সদস্যরা তাদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। কিশোর গ্যাংয়ের পক্ষ নেয় স্থানীয় একটি পক্ষ। এরই জের ধরে রাতে তাদের ওপর হামলা চালায় আব্দুল ওয়াদুদ, শাহিন, সাইফুল, শাকিলসহ আরও কয়েকজন। দুর্বৃত্তরা এসময় তাদের ৫ জনকে লোহার রড ও হাতুড়িপেটায় জখম করে। পরে হামলাকারীরদেরও মারপিটে জখম করা হয়। প্রতিপক্ষের আহত শাহিন দাবি করেছেন, মাদক সেবনের প্রতিবাদ করা নিয়ে কোন গোলযোগ হয়নি। আজমাইলের মেয়ের সাথে মুদি দোকানি ফতের ছেলে সোহানের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। তারা দুইজন অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছে। এই নিয়ে ফতের পরিবারের সাথে আজমাইলের পরিবার গোলযোগে জড়িয়ে পড়ে। কিন্তু আজমাইলের পরিবার বিনা কারণে আমার (শাহিন) চাচাতো ভাই সাব্বিরকে মারপিট করে। এর কারণ জানতে চাইলে গেলে অন্যদের মারপিট করা হয়। যে কারণে আমার পরিবারের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে তাদেরকে মারপিট করেছে। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের হাসপাতালে ভর্তি করেন। সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আহত ১০ জনের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। তাদের অবস্থা গুরুতর।