যশোর সরকারি এমএম কলেজ

৮২ বছর পর চালু হলো মধুসূদন দত্ত গ্যালারি ও সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং সেন্টার

এখন সময়: রবিবার, ১৯ মে , ২০২৪, ১১:৪০:৩৬ এম

 

 

মিরাজুল কবীর টিটো: কলেজ প্রতিষ্ঠার ৮২ বছর পর যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজে চালু করা হয়েছে মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত গ্যালারি ও সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং সেন্টার। বুধবার গ্যালারি ও কাউন্সিলিং সেন্টার উদ্বোধন করেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার।

মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের উপরে সংগৃহিত চিত্রগুলো লেখাগুলো থেকে শিক্ষার্থীদের সমৃদ্ধ করার জন্য এ গ্যালারি ও শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করার লক্ষ্যে সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং সেন্টার নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানান অধ্যক্ষ মর্জিনা আক্তার।

কলেজ সূত্র জানায়, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের নামে যশোরে সরকারি মাইকেল মধূসূদন কলেজ (সরকারি এমএম কলেজ) স্থাপিত করা হয় ১৯৪১ সালে। অথচ কলেজে মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের স্মৃতি স্মরণে তার নামে কোন কিছু নির্মাণ করা হয়নি। কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার এটি অনুধাবন করে মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত গ্যালারি নির্মাণ করেন। গ্যালারিতে মাইকেল মধুসূদন দত্তের লেখা বিভিন্ন গ্রন্থ রাখা হয়েছে।  নান্দনিক এই গ্যালারিতে পড়ার সুন্দর ব্যবস্থা আছে। বুধবার কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের  সাথে নিয়ে এটির উদ্বোধন করেন। একই সাথে উদ্বোধন করেন সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং সেন্টার। এ সেন্টারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে ভালো কাজে উদ্বুদ্ধ  করা ও লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করানোর চেষ্টা করানো হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং সেন্টার থাকা প্রয়োজন। যশোরের কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ সেন্টার নেই।

এ ব্যাপারে অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার জানান, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের নামে যশোরে মাইকেল মধূসূদন কলেজ স্থাপিত হয়েছে। তার নামে একটি একটি গ্যালারি না থাকলে হয় না। এজন্য মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের নামে একটি গ্যালারি করা হয়েছে যা থেকে শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা সমৃদ্ধ হবে। আর শিক্ষার্থীদের হতাশা দুর করে লেখাপড়ায় যাতে মনোনিবেশ করানো যায় এজন্য সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং সেন্টার করা হয়েছে। এ সেন্টারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সমস্যা ও হতাশার কথা শুনে উপযুক্ত কাউন্সিলিং দেয়ার চেষ্টা করা হবে।