মোরেলগঞ্জে স্কুলছাত্রী আত্মহত্যায় দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ১৫:৪৮:০৮ pm

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে উপমা মিস্ত্রি নামে স্কুলছাত্রীকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে দুই বখাটের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। ওই স্কুলছাত্রীর বাবা সব্রত মিস্ত্রি বাদী হয়ে সোমবার রাতে মোরেলগঞ্জ থানায় এ মামলা দায়ের করেন। 

ওই দুই যুবকের লাগাতার মানুষিক নির্যাতন সইতে না পেরে সোমবার বিকেলে উপমা মিস্ত্রি¿ ঘরে থাকা কিটনাশক পান করে আত্মহত্যা করে। তাকে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে তাকে চিকিৎসা প্রদান করে। মঙ্গলবার উপমার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। বাগেরহাটে নেয়ার পথে সে মারা যায়। নিহত উপমা মিস্ত্রি উপজেলার বলভদ্রপুর বি.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের বিশখালী গ্রামের সুব্রত মিস্ত্রির মেয়ে বলভদ্রপুর বি.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী উপমা মিস্ত্রি (১৫) বিদ্যালয়ে যাতায়াতকালে একই এলাকার কাঠিপাড়া গ্রামের অরুপ দাসের ছেলে তমাল দাস(২০) ও বড় হরিপুর গ্রামের স্বপন বিশ^াসের ছেলে শিশির বিশ্বাস (২৩) তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টায় নানা অপচেষ্টা চালিয়ে আসছিল।

কিন্তু স্কুলছাত্রী উপমা তাদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তারা বিভিন্ন সময় নানাভাবে উত্যক্ত করাসহ ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে আসছে। সম্প্রতি তমাল ও শিশির টাস মোবাইল ফোনে উপমার ছবি তুলে নেয় এবং তাকে শাসায় যে, তাদের প্রস্তাবে রাজি না হলে তার ছবি এডিট করে নোংরা ছবি সংযুক্ত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে সামাজিকভাবে তার সম্মানহানি ঘটাবে বলে হুমকি দেয়। তমাল ও শিশিরের লাগাতার মানসিক অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে এক পর্যায়ে উপমা বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানায়। তার বাবা-মা বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান-মেম্বার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবহিত করেন এবং তার মেয়েকে বিরক্ত না করার জন্য ওই দুই যুবককে চেয়ারম্যান অনুরোধ করেন। এতে তমাল ও শিশির আরও ক্ষিপ্ত হয়ে উপমার বাবাকেও হুমকি দেয়। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে উপমা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ও হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ে এবং গত ১৮ জুলাই বিকেলে ঘরে থাকা কীটনাশক পান করে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কচুয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে পরের দিন ১৯ জুলাই সন্ধ্যায় বাগেরহাট হাসপাতালে নেয়ার পথে উপমা মারা যায়।

এ ঘটনায় উপমাকে মানসিক বিপর্যস্ত করে আত্মহত্যা করার প্ররোচণায় উদ্ভুদ্ধ করার অভিযোগে তমাল ও শিশিরকে আসামি  করে সোমবার রাতে উপমার বাবা থানায় মামলা দায়ের করেন। থানার অফিসার ইন চার্জ মো. সাইদুর রহমান বলেন মামলা হয়েছে আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অভিযান করছে।