খুলনা জেলা পরিষদে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন শেখ হারুনুর রশিদ

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ১৬:৩০:৫৬ pm

খুলনা অফিস: আসন্ন জেলা পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়ন জমার শেষ দিনে খুলনায় উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যদিয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা শেখ হারুনুর রশিদ মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক বীরমুক্তিযোদ্ধা শেখ হারুনুর রশিদ তার সমর্থকদের নিয়ে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমাদানের সময় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে শো-ডাউনের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসেন। মনোনয়নপত্র জমা শেষে নগরীর শামীম স্কয়ার দলীয় কার্যালয়স্থ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

এ সময় খুলনা সিটি মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ তালুকদার আব্দুল খালেক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত অধিকারী, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি এ্যাড. কাজী বাদশা মিয়া, এ্যাড. রবীন্দ্রনাথ মন্ডল, বিএম সালাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, মো: কামরুজ্জামান জামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক সরদার আবু সালেহ, ইঞ্জিনিয়ার প্রেম কুমার মন্ডল, রুপসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কামালউদ্দিন বাদশা, বটিয়াঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফুল আলম খান, ফুলতলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আকরাম হোসেন, দাকোপ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবুল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বিনয় কুমার রায়, মোল্যা আকরাম হোসেন, আবুল কাশেম ডাবলু, দিলিপ হালদার, মৃনাল হাজরা, শাহনেওয়াজ জোয়াদ্দার, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি বিএম জাফর, কৃষক লীগের সাধারন সম্পাদক মানিকউজ্জামান অশোক, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শেখ মো: আবু হানিফ, ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মো: ইমরান হোসেন, তাঁতীলীগের কাজী আজাদুর রহমান, জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিসহ সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক বীরমুক্তিযোদ্ধা শেখ হারুনুর রশিদ বলেন, জেলার সকল জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে পথ চলে এসেছি। তাদের সাথে নিয়ে তৃনমুলে কাজ করছি। তৃনমুল ঠিক থাকলে দলকে সুসংগঠিত রাখা সম্ভব। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে আবারো প্রাধানমন্ত্রী হিসাবে জয়ী না করানো পর্যন্ত নেতাকর্মীদের রাজপথে থাকার আহবান জানান তিনি।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ১৭ অক্টোবর খুলনাসহ দেশের ৬১টি জেলা পরিষদে সকাল ৯টা থেকে ২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে ব্যবহার করা হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ছিল। ১৮ সেপ্টেম্বর বাছাইয়ের পর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৫ সেপ্টেম্বর।

জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের তথ্যমতে, সংশোধিত আইন অনুযায়ী এবার খুলনা জেলা পরিষদে ১৩ জন নির্বাচিত হবেন। এদিকে বিগত সময়ে খুলনা জেলা পরিষদে ১৫ জন সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এ বছর তা পরিবর্তিত হয়ে সাধারণ সদস্য পদ হয়েছে ৯টি ও সংরক্ষিত সদস্য পদ তিনটি। মোট সদস্য পদ সংথ্যা ১২টি। মোট ভোটার সংখ্যা ৯৭৮ জন। খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র, ৩১ কাউন্সিলর, ১০ সংরক্ষিত কাউন্সিলর, ৬৮ ইউপি চেয়ারম্যান, নয় উপজেলা চেয়ারম্যান, ১৮ ভাইস চেয়ারম্যান, সব সাধারণ ও সংরক্ষিত ইউপি সদস্য ভোটার।