কেশবপুরে অনুমোদনহীন ১৩ কিন্ডার গার্র্টেন স্কুল

এখন সময়: বুধবার, ৩০ নভেম্বর , ২০২২ ২৩:৪০:২৯ pm

কেশবপুর (পৌর) প্রতিনিধি: কেশবপুরে ১৬ কিন্ডার গার্টেন স্কুলের মধ্যে ১৩ টি অবৈধভাবে চলছে। এসব স্কুল নবায়নের আওতায় না আসলে শিক্ষার্থীদের সরকারি বই দেয়া হবে না বলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস জানিয়ে দেয়া হয়েছে। এরপর থেকে স্কুলগুলোর কর্তৃপক্ষের শুরু হয়েছে দৌড়ঝাপ। আগামি ১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত বই উৎসবে স্কুলগুলোর সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থীর হাতে সরকারি বই উঠবে কিনা তা নিয়ে অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, কেশবপুর উপজেলায় ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে ওঠেছে ১৬ কিন্ডার গার্টেন স্কুল। এর মধ্যে হালনাগাদ রেজিস্ট্রেশন আছে আল আমিন মডেল  একাডেমির এবং প্রাথমিক অনুমোদন রয়েছে সূচনা প্রি-ক্যাডেট ও কসমিক প্রি ক্যাডেটের। কেশবপুর উপজেলার শহরে রয়েছে আল আমিন মডেল একাডেমি, সূচনা প্রি-ক্যাডেট স্কুল, কসমিক প্রি ক্যাডেট স্কুল, কপোতাক্ষ আইডিয়াল একাডেমি, সানিডেল প্রি ক্যাডেট স্কুল ও বাংলা মডেল একাডেমি। এছাড়া, শহরের বাইরে রয়েছে ত্রিমোহিনীর কথা প্রি ক্যাডেট স্কুল, মঙ্গলকোট সবুজ শিক্ষা নিকেতন প্রি-ক্যাডেট স্কুল, পাঁজিয়া এডাস প্রি ক্যাডেট স্কুল, সাতবাড়িয়া প্রি ক্যাডেট স্কুল, হাসানপুর প্রি ক্যাডেট স্কুল, চাদড়া প্রি-ক্যাডেট স্কুল, সাগরদাঁড়ি ছবি প্রি ক্যাডেট স্কুলসহ ১৬ কিন্ডার গার্টেন স্কুল। এসব স্কুলে অধ্যায়নরত রয়েছে প্রায় ২ হাজার  শিক্ষার্থী। এর মধ্যে শহরের আল আমিন মডেল একাডেমির হালনাগাদ রেজিস্ট্রেশন আছে। সূচনা প্রি-ক্যাডেট স্কুল ও কসমিক প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রাথমিক অনুমোদন রয়েছে বলে জানা গেছে। কেশবপুর শহরে অবস্থিত কপোতাক্ষ আইডিয়াল একাডেমির প্রাথমিক অনুমোদন না থাকলেও চলছে বহাল তবিয়াতে। তবে স্কুলের পরিচালক আজাহারুল ইসলাম বলেন, অনুমোদন পাওয়ার জন্যে তিনি খুলনা উপপরিচালকের কার্যালয়ে কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। 

আল আমিন মডেল একাডেমির পরিচালক আব্দুল গফুর বলেন, তার স্কুল উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃত। সর্বশেষ ২০১৯ সালের ৫ম শ্রেণির বৃত্তি পরীক্ষায় ১৮ শিক্ষার্থী বৃত্তি পেয়েছে। যা উপজেলার মধ্যে প্রথম স্থান লাভ করে। করোনায় ২ বছর বৃত্তি পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। 

এ ব্যাপারে সূচনা প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক রুহুল আমিন বিশ্বাস বলেন, যে সব কিন্ডার গার্টেন স্কুলের প্রাথমিক অনুমোদন নেই, তাদেরকে ৫ মাস আগে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে নবায়ন করার কথা বলা হয়েছিল। আমার স্কুলের প্রাথমিক অনুমোদন রয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল জব্বার সাংবাদিকদের জানান, গত ১৪ নভেম্বর উপজেলার সকল কিন্ডার গার্টেন স্কুলগুলো ডাকা হয়েছিল। এসময় তাদের সরকারি পরিপত্র ও গেজেট পড়ে শোনানো হয়। ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে এসব স্কুল সরকারের অনুমোদন নিতে ব্যর্থ হলে তাদের সরকারি বই দেয়া হবে না বলে তাদের তে অবহিত করা হয়েছে।