দিনব্যাপী খুলনা বিভাগীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট

চ্যাম্পিয়ন যশোর লাভার্স, রানার্স আপ যশোর টাইটানস

এখন সময়: শনিবার, ২ মার্চ , ২০২৪, ০৬:৫৪:৪৭ পিএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক : যশোরে শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে দিনব্যাপী এসএসসি ২০০৭ ও এইচএসসি ২০০৯ ব্যাচের খুলনা বিভাগীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। চ্যাম্পিয়ন হয়েছে যশোর লাভার্স ও রানার্স আপ হয় যশোর টাইটানস। স্থানীয় শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে খুলনা বিভাগের ৮টি টিম অংশ নেয় এ টুর্নামেন্টে। ফাইনালে যশোর লাভার্স ৫০ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত করে যশোর টাইটানসকে। যশোর লাভার্স প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৬৮ রান করে। জবাবে ১৮ রানে অলআউট হয়ে যায় যশোর টাইটানস। এর আগে প্রথম সেমিফাইনালে ঝিনাইদহ ফাইটার্সকে ৫৬ রানের বড় ব্যবধানে পরাজিত করে ফাইনালে ওঠে যশোর টাইটানস। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে যশোর লাভার্স ৬৩ রানের বড় ব্যবধানে সাতক্ষীরা টাইগার্সকে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয়। এর আগে সকালে অনুষ্ঠিত প্রথম খেলায় জয় পায় ঝিনাইদহ ফাইটার্স। তারা ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারায় চুয়াডাঙ্গা স্টার্সকে। দ্বিতীয় খেলায় যশোর টাইটানস পরাজিত করে কুষ্টিয়া রাইডার্সকে। তৃতীয় খেলায় সাতক্ষীরা টাইগাস ৬ উইকেটের ব্যবধানে হারায় সাতক্ষীরা টাইগার্সকে। চতুর্থ ম্যাচে যশোর লাভার্স ৩ রানের ব্যবধানে পরাজিত করে খুলনা টাইগার্সকে। উল্লেখ্য, এ টুর্নামেন্টে অংশ নেয় যশোর লাভার্স, যশোর টাইটানস, খুলনা লায়ন্স, খুলনা টাইগার্স, সাতক্ষীরা টাইগার্স, চুয়াডাঙ্গা স্টার্স, কুষ্টিয়া রাইডার্স এবং ঝিনাইদহ ফাইটার্স। টুর্নামেন্ট সেরা ও ফাইনালে ম্যাচ সেরা হয়েছেন চ্যাম্পিয়ন দল যশোর লাভার্সের বাসার। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক রফিকুল হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেস ক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আমিনুর রহমান মামুন, দৈনিক স্পন্দন পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক মাহাবুব আলম লাবলু ও দৈনিক গ্রামের কাগজ পত্রিকার সহকারী সম্পাদক জাহিদ আহমেদ লিটন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন টুর্নমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব দেলোয়ার হোসেন দিলসান। চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দলকে ক্রেস্ট ও ট্রফি দেয়া হয়। এ সময় টুর্নামেন্ট কমিটির আহŸায়ক এসআই নাজমুল আহসান, যশোর লাভার্স টিমের অধিনায়ক মাসুম বিল্লাহ, টুর্নামেন্ট কমিটির সদস্য ওমর ফারুক রনি, অনিদ্য, মাসুম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।