তালায় ছিনতাইকারী চক্রের হোতা আটক, দুইটি মোটরসাইকেল উদ্ধার

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ১৫:৩১:২৫ pm

তপন চক্রবর্তী, তালা (সাতক্ষীরা) : সাতক্ষীরার তালায় মোটরসাইকেল ছিনতাইকারী চক্রের হোতা এসএম কামরুজ্জামান ওরফে বঙ্গালকে (৫০)  আটক করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলাও রয়েছে। 

বৃহস্পতিবার রাতে সাতক্ষীরার আশাশুনি এলাকার কুল্যা মোড় থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী যশোরের ঝিকরগাছা এলাকার মাটিকুমড়া থেকে দুইটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। 
এসএম কামরুজ্জামান ওরফে বঙ্গাল সাতক্ষীরা সদরের ভালুকা চাঁদপুর এলাকার মৃত নওয়াব আলীর ছেলে। তবে বর্তমানে তিনি আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা এলাকায় বসবাস করেন।
শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১ টায় তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে একথা জানান।
তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান জানান, তালা উপজেলার বালিয়াদহ গ্রামের মৃত আকবর আলী ফকিরের ছেলে মো. রুহুল আমিন ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। গত ৩ নভেম্বর প্রতিদিনের ন্যায় রুহল আমিন তার মোটরসাইকেল নিয়ে  বের হন। তালা কপোতাক্ষ ব্রিজ মোড়ে অবস্থানকালে একজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির সাথে তার পরিচয় হয়। ওই ব্যক্তি রুহল আমিনের সাথে স্বল্পসময়ের মধ্যে বিশ্বস্তপূর্ণ সম্পর্ক করে। একপর্যায়ে তার সাথে মোটরসাইকেল নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় যাবেন বলে চুক্তিতে আবদ্ধ হয়।
সে অনুযায়ী তারা তালার জেঠুয়া বাজারে যাবার উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার পথিমধ্যে তিনি জিডি করার জন্য তালা থানায় যাওয়ার কথা বলেন। তিনি নিজে মোটরসাইকেল চালিয়ে পিছনে রুহল আমিনকে নিয়ে তালা থানায় আসেন। রুহল আমিনকে তালা থানার সামনে দাঁড় করিয়ে ওই ব্যক্তি থানায় প্রবেশ করেন এবং কিছুক্ষণ পরেই তিনি বের হন। এরপর তিনি আবারও প্রস্তাব দেন তিনি তাকে নিয়ে বেশ কিছু জায়গায় যাবেন। ইতিমধ্যে থানায় প্রবেশ করার কারণে তার বিশ্বস্ততা আরো অর্জন করেন। ওইদিন সকাল ১০ টার সময় থানা থেকে রওনা হন। সাড়ে ১০ টার দিকে তালা ব্রীজ মোড় পাকা রাস্তার উপর পৌঁছালে ওই ব্যক্তির পরিকল্পনা অনুযায়ী তাকে মোটরসাইকেল থেকে নামিয়ে দোকান থেকে তেল নেয়ার কথা বলে রুহল আমিনকে  এক হাজার টাকার নোট ভাঙানোর কথা বলে অন্য দোকানে পাঠান।
এ সময় মোটরসাইকেল নিয়ে চম্পট দেয় ওই প্রতারক। এরপর রুহল আমিন তালা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগটি পাওয়ার পর ওই ব্যক্তি থানায় আসার সূত্র ধরে থানার সিসি ক্যামেরা থেকে স্পষ্ট ছবি সংগ্রহ করে তার পরিচয় উদ্ঘাটন করে গ্রেফতার ও মোটরসাইকেল উদ্ধারের চেষ্টা চালানো হয়। ঘটনার এক মাস পর ওই ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিত হয় পুলিশ।
এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তালা থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম খানের নেতৃত্বে এসআই আবু কাউসার ও চন্দন কুমার মন্ডলের একটি চৌকস টিম যশোর, কেশবপুর, সাতক্ষীরা, আশাশুনী ও শ্যামনগর এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে চিহ্নিত আসামি এসএম কামরুজ্জামানকে আশাশুনির কুল্যা মোড় এলাকা থেকে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী যশোরের ঝিকরগাছা এলাকার মাটিকুমড়া থেকে রুহল আমিনের খোয়া যাওয়া মোটরসাইকেলসহ দুইটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।
তালা থানা ওসি আরো জানান, আসামির বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। আদালতে সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। রিমান্ড মঞ্জুর হলে আরো আসামির কাছ থেকে আরো তথ্য জানা যাবে।