শ্র্রীপুরের দুই গ্রাম পুরুষশূন্য : চরম নিরাপত্তাহীনতায় নারী ও শিশুরা

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ০৯:৪৮:৫৫ am

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা সরইনগর ও খোদ্দরহুয়া গ্রামে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আলাউদ্দিন শেখ (৫৫) নামে একজনের মৃত্যু ও উভয়গ্রুপের কয়েকজন গুরুতর আহত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রাম দুটি পুরুষশুন্য হয়ে পড়েছে। এ কারণে চরম নিরাপত্তাহীনতায় পড়েছে গ্রাম দু’টির নারী, শিশু ও বৃদ্ধরা। খুলে নিয়ে গেছে বাড়ির টিউবওয়েলের মাথা-মোটর, ভেঙে ফেলেছে অধিকাংশ বাড়ির বৈদ্যুতিক মিটার, ঘর ও আসবাবপত্র। এদিকে পুরুষ মানুষ বাড়িতে না থাকায় চলতি মৌসুমের মাঠভর্তি পাট কাটতে পারছেন না তারা। ফলে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে আমন ধানের চাষও।

শনিবার সকালে সরেজমিনে সরইনগর ও খোদ্দরহুয়া গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, বিভিন্ন বাড়ির গাছে কাঁঠাল ও পেয়ারা পেকে পেকে মাটিতে পড়ে স্তুপ হয়ে গেছে। খাওয়া বা বিক্রির লোক নেই। বৈদ্যুতিক মিটার ভেঙে ফেলেছে। ঘরবাড়ি ভেঙে তছনছ করে রেখেছে। নিয়ে গেছে বাড়ির গবাদি পশু ও আসবাবপত্র। বাড়ি বাড়ি গিয়ে দেখা গেছে, সরইনগর গ্রামের নায়েব আলী, আমির শেখ, আওয়াল মোল্যা, মশিয়ার মুসল্লী, মোস্ত মিয়া, খোদ্দরহুয়া গ্রামের আবু বক্কার মোল্যা, হালিম জোয়ার্দার, জাহিদ, রকিবুল, কাশেম লস্কর, সালাম লস্কর, সিরাজ মোল্যাসহ প্রায় অর্ধ-শতাধিক বাড়ির বৈদ্যুতিক মিটার ও টিউবওয়েলের মাথা খুলে নিয়ে গেছে। ফলে বাড়ির নারী শিশু ও বৃদ্ধরা কোথাও থেকে পানি আনতে না পেরে দুঃসহ জীবন যাপন করছেন। অধিকাংশ বাড়ির চুলো জ্বলছে না ঘটনার পর থেকেই। এদিকে ৫ জন চাকুরিজীবী ঈদের ছুটিতে বাড়ি বেড়াতে এসে এবং দুইজন কর্মস্থলে থেকেও হত্যা মামলায় আসামি হয়েছেন বলে ভূক্তভোগী খোদ্দরহুয়া গ্রামের ষাটোর্ধ মনসুর আলী খান জানান।

এদিকে আলাউদ্দিন শেখ হত্যা মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে শ্রীকোল ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবু বক্কারকে। তিনি বর্তমানে মাগুরা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনার দিন হাট শ্রীকোল বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে সরইনগর কাজী বাড়ির সামনে থেকে প্রতিপক্ষরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। তাকে আহত করার ঘটনাকে কেন্দ্র করেই দুই গ্রামে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে দুই গ্রুপের বেশ কয়েকজন আহত হয়। এরমধ্যে আলাউদ্দিন শেখ (৫৫) নামে এক ব্যক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এদিকে অপর পক্ষের একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আলাউদ্দিন শেখের মৃত্যুর ঘটনায় তার ছেলে মিরাজ শেখ বাদী হয়ে ৫৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামাকে আসামি করে মামলা করেছেন। অপরদিকে গুরুতর আহত আবু বক্কার মোল্যার ছেলে সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে ৪৬ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামাকে আসামি করে আরেকটি মামলা দায়ের হয়েছে। এরপর থেকেই এলাকা পুরুষশূণ্য হয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীপুুর থানার ওসি (তদন্ত) মোশাররফ হোসেন জানান, দুই মামলায় মোট ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারে তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।