ছাত্রী নিবাসে পুরুষ শিক্ষক : শরণখোলায় শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন ও বিক্ষোভ

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ০৮:৪০:১৯ am

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : বাগেরহাটের শরণখোলায় সরকারি কলেজের ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ছাব্বির আহমেদ মুক্তা শেখ রাজিয়া নাসের ছাত্রী নিবাসের একটি কক্ষ দখল করে রাখার প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন ও বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা। শনিবার সকাল ১০টার দিকে কলেজ চত্বরে এ প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ছাত্রীদের আবাসিক সংকট নিরসনে ২০১৭ সালে শিক্ষক পরিষদের এক সভায় কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষকদের বসবাসরত কয়েকটি কোয়ার্টারকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচী বেগম রাজিয়া নাসেরের নামে ছাত্রী নিবাস নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এ সিদ্ধান্তে পরে অন্যান্য সকল শিক্ষকরা কোয়ার্টার ছেড়ে দিলেও ইতিহাস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ মুক্তা কোয়ার্টারটি ছাড়তে অপারগতা প্রকাশ করেন। কলেজের পক্ষ থেকে তাকে দুইবার নোটিশ করা হলেও ক্ষমতার অপব্যবহার করে ছাত্রী নিবাসের কক্ষটি দখল করে রাখেন তিনি। পরে, শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপেও ছাত্রী নিবাসের কক্ষটি দখলমুক্ত করা সম্ভব হয়নি। এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার ছাত্রী নিবাসের কক্ষ ছাড়ার জন্য বিক্ষোভ মিছিল করে শরণখোলা উপজেলা ছাত্রলীগ। বিক্ষোভ সমাবেশে আগামী তিন দিনের মধ্যে ওই শিক্ষককে ছাত্রী নিবাস ছেড়ে দেয়ার আল্টিমেটাম দেয়া হয়। অন্যথায় শনিবার থেকে ক্লাস বর্জনের ঘোষণা দেয়া হয়। এ অংশ হিসাবে শনিবার সকাল ১০ টা থেকে ওই কলেজের সকল ছাত্রছাত্রী ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে কলেজ ক্যাম্পাস ত্যাগ করে।

এ ব্যাপারে ছাত্রী নিবাসে বসবাসরত শিক্ষার্থী ফারজানা আক্তার শান্তা বলেন, আমরা মেয়েরা হোস্টেলে থাকি পাশের রুমে মুক্তা স্যার থাকেন এতে আমরা সাচ্ছন্দে চলাফেরা করতে পারছিনা। যার কারণে ছাত্রী নিবাসে বসবাসরত শিক্ষার্থীরা বিব্রতকর ও নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। তাকে সরিয়ে মেয়েদের অভিভাবক হিসেবে একজন নারী শিক্ষিকাকে দায়িত্ব দেয়ারও দাবি জানান এ শিক্ষার্থী।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক মো. সাব্বির আহমেদ মুক্তা বলেন, ক্লাস বর্জনের নামে যা হচ্ছে তা তার সুনাম ক্ষুণœ করার ষড়যন্ত্র। তবে তিনি আরও জানান, তার বাড়িতে নির্মাণ কাজ চলছে তাই মালামাল রাখার যায়গা সংকট থাকায় ১০/১১ দিনের মধ্যে তিনি ওই কক্ষটি ছেড়ে দিবেন।

এ ব্যাপরে কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ নুরুল আলম ফকির জানান, শেখ রাজিয়া নাসের ছাত্রী নিবাসের জন্য বরাদ্দকৃত কক্ষটি ছেড়ে দেয়ার জন্য একাধিকবার নোটিশ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলেও তা আমলে নেননি শিক্ষক সাব্বির আহমেদ মুক্তা।