ভোমরা স্থলবন্দরে চাঁদাবাজি ও ব্যবসায়ীদের হয়রানির প্রতিবাদে ৭ সংগঠনের যৌথসভা

এখন সময়: রবিবার, ১৯ মে , ২০২৪, ১১:১৮:৩৭ এম

 

শাকিলা ইসলাম জুঁই, সাতক্ষীরা : সি এন্ড এফ এজেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশনের জিরো পয়েন্টে চাঁদাবাজি ও বিভিন্ন দপ্তরে ব্যবসায়ীদের হয়রানির প্রতিবাদে ব্যবসায়িক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট যে কোন ধরনের আন্দোলন কর্মসূচি সফল করতে ভোমরা স্থলবন্দরের সাত সংগঠনের যৌথ সভায় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে ভোমরা স্থলবন্দর আমদানি ও রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের নিজস্ব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত চার শ্রমিক  সংগঠন ও দুই ট্রান্সপোর্ট সমিতির যৌথ সভায় উল্লিখিত সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। জিরো পয়েন্টে চাঁদাবাজি ও বিভিন্ন দপ্তরের হযরানির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও ধর্মঘটসহ যে কোনো ধরনের কর্মসূচি সফল করতে যৌথ সভার নেতৃবৃন্দ একমত পোষণ করেছেন।

সভায় আমদানী ও রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের কার্যক্রম নিয়ে সিএন্ডএফ এজেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশনে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এজাজ আহমেদ স্বপন এবং সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ খান স্বাক্ষরিত জেলা প্রশাসকের নিকট প্রেরিত চিঠির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

বক্তারা বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে ভোমরা বন্দরের জিরো পয়েন্টে আমদানিকৃত পণ্যবাহী ভারতীয় ট্রাক থেকে থেকে ২শ রুপি করে চাঁদা আদায় করে আসছে সি এন্ড এফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের নেতা মাকছুদ ও এজাজ আহম্মেদ স্বপন। প্রতিদিন প্রায় ২৫০ থেকে ৩০০ ট্রাক থেকে বাংলা টাকার প্রায় এক লাখ টাকা চাঁদা আদায় হয়ে থাকে। মাসে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ লক্ষ্য টাকা আদায় করা হচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এসব চাঁদাবাজি ও বিভিন্ন দপ্তরের হয়রানির প্রতিবাদ করায় আমদানী ও রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের  নিবন্ধন নিয়ে মনগড়া প্রশ্ন তোলা হচ্ছে। সংবিধানের “৩৮” অনুচ্ছেদের নাগরিকদের সংগঠন করার অধিকার দিয়েছে। সেক্ষেত্রে নিবন্ধন বাধ্যতামূলক নয়। অথচ জিরো পয়েন্টে চাঁদাবাজি জায়েজ করতে সি এন্ড এফ এজেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশনের সুবিধাভোগী নেতা এজাজ আহম্মদ স্বপন ও সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ খান মিথ্যা কল্পকাহিনী রচনা করে সাধারণ ব্যবসায়ীদের বিভ্রান্ত করছে।

দ্রুত সময়ের  মধ্যে জিরো পয়েন্টে চাঁদাবাজি বন্ধ না হলে মানববন্ধন ও ধর্মঘটের কর্মসূচি সফল করতে সকল সংগঠন একমত পোষণ করেছেন।

আমদানী ও রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রামকৃষ্ণ চক্রবর্তীর  সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত যৌথ সভায় বক্তৃতা করেন, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ট্রান্সপোর্ট ইউনিয়নের কার্যনিবাহী সদস্য কাজী আক্তার হোসেন, আমদানী ও রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক কিনু বিশ্বাস, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আসাদুল ইসলাম, কাস্টমস্ বিষয়ক সম্পাদক জাকির হোসেন মন্টু,ভোমরা স্থলবন্দর হ্যান্ডেলিং শ্রমিক ইউনিয়ন-১১৫৯ এর সভাপতি  আনারুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম,  হ্যান্ডেলিং শ্রমিক ইউনিয়ন-১১৫৫ এর সভাপতি নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক হারুণ অর রশিদ, হ্যান্ডেলিং শ্রমিক ইউনিয়ন -১৭২২ এর সভাপতি শামসুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দীন, হ্যান্ডেলিং শ্রমিক ইউনিয়ন-১৯৬৪ এর সভাপতি আশরাফুল ইসলাম বাবলু ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুল ইসলাম, ভোমরা স্থলবন্দর ট্রান্সপোর্ট, মালিক সমবায় সমিতি লিঃ-৮৬/সাত এর সভাপতি ফিরোজ হোসেন, ট্রান্সপোর্ট মালিক বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ-৮৭/সাত এর সাধারণ সম্পাদক রমজান আলীসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।