শিশু ধর্ষণের ঘটনা ২ লাখ টাকায় মীমাংসা চেষ্টার গুঞ্জন

এখন সময়: সোমবার, ৩০ জানুয়ারি , ২০২৩ ০০:৫৮:৩১ am

সিরাজুল ইসলাম, কেশবপুর : কেশবপুরে পল্লীতে শিশু ধর্ষণের ঘটনার ৫ দিনেও কোনো মামলা হয়নি। ২ লাখ টাকায় ধর্ষণের বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে।
অভিযোগ উঠেছে, কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর ইউনিয়নের লক্ষিনাতকাটি গ্রামের ফতেহপুর দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মাওলানা মহিউদ্দিন গাজী গত ৭ নভেম্বর সকাল ১১টার দিকে এক প্রতিবেশীর ৬ বছরের একটি শিশু কন্যাকে ফুসলিয়ে তার নিজ বাড়ির দোতলার ছাদে নিয়ে যান। তারপর সেখানে তিনি শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। শিশুটি সেখান থেকে পালিয়ে বাড়িতে গিয়ে তার দাদীকে ঘটনাটি খুলে বলে। 
ভুক্তভোগীর দাদী জানান, শিশুটির গোপনাঙ্গ রক্তাক্ত জখম দেখে  তার বাবা-মা সাথে সাথে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। সেখানে তাকে ভর্তি করা হয়েছে। 
জানা গেছে, ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মহিউদ্দিন গাজী ওই দিনের পর থেকে গা-ঢাকা দিয়েছেন ও তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নম্বরটি বন্ধ রয়েছে। 
শিশুটির দাদা বলেন, হাসপাতাল থেকে ফেরার পর মামলা করার কথা। কিন্তু মামলা করা হয়েছে কী না তা বলতে পারছি না।  নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক স্থানীয় ব্যক্তি জানিয়েছেন, মহিউদ্দিন গাজী পালিয়ে থেকে ওই শিশুটির পরিবারকে ২ লাখ টাকা দিয়ে ধর্ষণের বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করছেন।
মহিউদ্দিনের স্ত্রী জোহরা বেগম বলেন, তার স্বামী এখনো পলাতক রয়েছে। তবে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করছে কী না বলতে পারছি না। 
এ ব্যাপারে শুক্রবার কেশবপুর থানার ডিউটি অফিসার বলেন, থানায় শিশু ধর্ষণে কোনো অভিযোগ হয়েছে কী না বলতে পারছি না।