জাপানের জাতীয় ফল পার্সিমন চাষ করে সফল চৌগাছার জুলফিকার

এখন সময়: মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই , ২০২৪, ০২:৪০:৫৩ পিএম

 

চৌগাছা প্রতিনিধি: যশোরের চৌগাছায় জাপানের জাতীয় ফল পার্সিমন চাষ করেছেন কৃষক জুলফিকার আলী। তিনি  ৫ কাঠা জমিতে পরীক্ষামূলকভাবে বিদেশি এই ফল চাষ করেছেন। আর  এতেই তিনি সফলতা অর্জন করেছেন।

জুলফিকার আলীর বাড়ি উপজেলার স্বরুপদাহ ইউনিয়নের হিজলী গ্রামে।

এ ফল ক্ষেতের পাশ দিয়ে কেউ হেঁটে গেলে মনে হবে গাছে ধরে আছে আপেল কিংবা দেশি জাতের গাব। কিন্তু নিকটে গেলে বোঝা যাবে এই দুটোর কোনটিই নয়, এটা অন্য জাতের ফল।

চৌগাছার মাটিতে এখন চাষ হচ্ছে জাপানের জাতীয় ফল পার্সিমন। চাষি জুলফিকার আলী জানান, সাত বছর আগে নাটোর জেলা হর্টিকালচার থেকে ৩০টি পার্সিমনের চারা কিনে এনে পাঁচ কাঠা জমিতে লাগান। সাত বছর ধরে পরিচর্যা করে ২০২৩ সালে গাছে ফল এসেছে। ফলটি দেখতে যেমন সুন্দর খেতে ও বেশ সুস্বাদু। তিনি এ গাছ থেকে ইতি মধ্যে চারা তৈরি করে বিক্রি শুরু করেছেন। তার ক্ষেতে থোকায় থোকায় ঝুলে বিদেশি জাতের এই ফল। নতুন ফল দেখতে প্রতিদিন অনেক মানুষ আসছেন তার বাগানে।

এলাকার অনেক কৃষক এ ফল চাষে এগিয়ে আসছেন। ফলটি দেখতে অনেকটা আমাদের দেশের টমেটো ও গাবের মতো। গায়ের রং কমলা ও হলুদ রঙের মিশ্রণে দারুণ এ ফল প্রত্যেটি গাছের ডালে-ডালে থোকায়-থোকায় ধরে ঝুলছে। দেখলে চোখ ফেরানো যায় না। ওজনে কেজিতে ৬/৭ টি ফল হয়। ফলটি কাটলে ভিতরে পাকা টমেটার মতোই দেখতে। ফলটির ভেতরে বীজ নেই বললেই চলে। খোসাসহ খেতে দারুণ সুস্বাদু।

কৃষি উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্য কর্মকর্তারা রাশেদুল ইসলাম বলেন, তারা নানাভাবে জুলফিকার আলীকে পরামর্শ দিচ্ছেন। তিনি বলেন পার্সিমন ভিটামিন, আয়রণসহ নানা পুষ্টিগুণে ভরপুর  মিষ্টি এবং রসাল একটি ফল।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা চাঁদ আলী বলেন, জুলফিকার আলীর বন উন্নয়ন নামে একটি নার্সারী রয়েছে। তিনি বিভিন্ন দেশের উন্নত জাতের নতুন ফলের চারা,বীজ ও গাছ সংগ্রহ করে প্রথমে নার্সারীতে মাদার গাছ তৈরী করেন। পরে সেই মাদার গাছ থেকে চারা উৎপাদন করে নিজে নতুন জাতের আবাদ করেন ও চারা বিক্রি করে থাকেন। জাপানের জাতীয় ফল পার্সিমন তেমনই একটি নতুন জাতের ফল। আমাদের এলাকায় এটা একে বারেই প্রথম চাষ হচ্ছে।

 উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোসাব্বির হোসাইন বলেন, আমরা কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে নতুন জাতের ফলে চাষ করা চাষিদের সব সময় পাশে থেকে পরামর্শ দিয়ে থাকি। জাপানের জাতীয় ফল পার্সিমন চাষী জুলফিকারকেও সব সময় বিভিন্ন পদ্ধতি ও পরামর্শ দিয়ে আসছি।