ইসরায়েল কেন যুক্তরাষ্ট্রে হলো না

এখন সময়: শনিবার, ২ মার্চ , ২০২৪, ০৭:৪৪:০৪ পিএম

ফলিস্তিনিি শশিুসহ সব স্তররে মানুষরে ওপর ইসরায়লেি নৃশংসতার দুটো দকি: একটি হলো ইসরায়লেরে আগ্রাসন ও সুপরকিল্পতি গণহত্যার ধারাবাহকিতা এবং অন্যটি হলো এর অবসানে আর্ন্তজাতকি সব আইন ও প্রতষ্ঠিানরে অর্কাযকারতিা।

বহু বছর ধরে তো চলছইে, শুধু গত ৭ অক্টোবররে পর থকেইে ইসরায়লেি বাহনিী প্রায় ১৪ হাজার ফলিস্তিনিকিে হত্যা করছে,ে এর মধ্যে প্রায় ৬ হাজার শশিু এবং ৪ হাজার নারী। জখম হয়ছেনে ৩০ হাজাররে বশেি মানুষ। নখিোঁজ প্রায় ৬ হাজার। এগুলো কি শুধুই সংখ্যা? এককেজনরে সঙ্গে কত মানুষ, আর এই নৃশংসতা যে ক্ষোভ ও ঘৃণা তরৈি কর,ে তা কত দূর যাব?ে

জাতসিংঘ, আর্ন্তজাতকি অপরাধ আদালতসহ বশ্বিরে যাবতীয় প্রতষ্ঠিান অর্কাযকর হওয়ার কারণ বশ্বিরে ক্ষমতাধর শক্তি যুক্তরাষ্ট্র দখলদার ইসরায়লে সরকাররে পক্ষ,ে আর যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপরে বড় রাষ্ট্রগুলো তার পছেন।ে শুধু পক্ষে বললে ভুল হব,ে এই গণহত্যা অব্যাহত রাখতে তারা জাতসিংঘসহ সব প্রতষ্ঠিানকে অর্কাযকর করে দচ্ছি।ে তাহলে বশ্বি কীভাবে চল?ে 

আইন, প্রতষ্ঠিান এগুলো কই? যুক্তরাষ্ট্র বহুবারই দখেয়িছেে যে এই বশ্বি চলে ‘জোর যার মুল্লুক তার’ পদ্ধততি।ে নজিদেরে অপরাধরে বধৈতা দতিে তারা কীভাবে গণমাধ্যম ব্যবহার কর,ে তার বহু প্রমাণ আছ।ে সর্ম্পূণ মথ্যিা একটি দাবরি ওপর ইরাক দখল হলো, ১০ লক্ষাধকি মানুষ খুন করা হলো। এর জন্য যুদ্ধাপরাধী হসিবেে কয়কেজন র্মাকনি প্রসেডিন্টেসহ র্কমর্কতাদরে আর্ন্তজাতকি আদালতে বচিার হওয়ার কথা। হয়ন,ি আর যুক্তরাষ্ট্র এই আদালতরে সদস্যপদই নয়েন।ি

গত ৭ অক্টোবর হামাস ইসরায়লেে অর্তকতি হামলা চালানোর পর থকেে ইসরায়লেরেও সহস্রাধকি মানুষ নহিত হয়ছেনে। এর দায় কার? হামাস নামরে একটি সংগঠনরে, না ইসরায়লে রাষ্ট্ররে, না ইসরায়লেকে পৃষ্ঠপোষকতা দওেয়া রাষ্ট্রগুলোর?

এর উত্তর পাওয়া যায় ইসরায়লেরেই একজন লখেক ও সাংবাদকি গডিওিন লভেরি প্রতক্রিয়িায়। তনিি এর দুই দনি পর সে দশেরেই পত্রকিা হারৎেজ-এ লখিছেনে এভাব,ে ‘এই সবকছিুর জন্য দায়ী ইসরায়লেি ঔদ্ধত্য; এ রকম একটা ধারণা য,ে আমরা যা খুশি তা করতে পার,ি এ জন্য আমাদরে কোনো মূল্য দতিে হবে না এবং কোনো শাস্তি পতেে হবে না।...আমরা ফলিস্তিনিদিরে গ্রপ্তোর করব, হত্যা করব, হয়রানি করব, উচ্ছদে করব আর তাদরে ওপর গণহত্যা র্কাযক্রম চালানো শটেলোর বা দখলদারদরে রক্ষা করব। আমরা নরিপরাধ মানুষরে ওপর গুলি চালাব, তাদরে চোখ তুলে ফলেব, মুখ ভঙেে ফলেব, তাদরে বহষ্কিার করব, তাদরে সম্পদ বাজয়োপ্ত করব, তাদরে বছিানা থকেে তুলে নয়িে আসব এবং অবশ্যই গাজা উপত্যকায় অবশ্বিাস্য অবরোধ চালয়িে যাব আর ধরে নবে সবকছিু ঠকিমতো চলব।ে’ (বাংলা অনুবাদ-র্সবজনকথা, নভম্বের ২০২৩) 

এটা মনে রাখতে হবে যে একটি সম্প্রদায় হসিবেে ইহুদি জনগোষ্ঠী হাজার বছর ধরে নর্যিাততি হয়ছে।ে এই নর্যিাতনে প্রধান ভূমকিা ছলি ইউরোপরে খ্রষ্টিান নতোদরে। ইউরোপে ইহুদবিদ্বিষে ও ঘৃণা এত প্রবল ছলি যে সব অঘটন, রোগ, সংঘাত, মহামাররি জন্য তাঁরা ইহুদদিরে দায়ী করতনে।

অসংখ্য নরিীহ ইহুদি এই বদ্বিষে এবং তার থকেে ছড়য়িে পড়া নৃশংসতার বলি হয়ছেনে। নারী-শশিুও বাদ যায়ন।ি হটিলাররে শাসনামলে এই ধারা ভয়ংকর আকার নয়ে এবং হলোকাস্টরে নৃশংসতার সৃষ্টি হয়। হটিলাররে কাছে শ্বতোঙ্গ খ্রষ্টিান ছাড়া সবাই ছলিনে নকিৃষ্ট।

নপিীড়তি ইহুদদিরে নজিস্ব রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিার বষিয়টি জোরদার হয় উনশি শতক।ে কারণ, তখন ইউরোপে ইহুদবিদ্বিষে বাড়ছলি। ১৮৯৬ সালে অস্ট্রয়িান-হাঙ্গরেয়িান সাংবাদকি ও লখেক থওিডর র্হাজ প্রথম বষিয়টি গুছয়িে প্রকাশ করনে তাঁর দ্য জউিইশ স্টটে গ্রন্থ।ে এর পর থকেে নয়িমতি জয়িনবাদী সম্মলেন আয়োজতি হতে থাক।ে তবে র্হাজরে কল্পতি রাষ্ট্র র্ধমভত্তিকি ছলি না, ছলি সক্যেুলার—গণতান্ত্রকি। ১৯০৪ সালে তনিি মৃত্যুবরণ করনে।

১৯০৫ সালে সপ্তম জয়িনবাদী কংগ্রসেে ইহুদদিরে রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিার জন্য একাধকি স্থান প্রস্তাব করা হয়। এগুলোর মধ্যে উল্লখেযোগ্য ছলি র্আজন্টেনিা, উগান্ডা ও ফলিস্তিনি। অবশষেে ফলিস্তিনিে একটি ইহুদি রাষ্ট্র স্থাপনরে সদ্ধিান্ত নওেয়া হয়। সদ্ধিান্ত হয়, এ রাষ্ট্ররে নাম হবে ইসরায়লে। কন্তিু দুনয়িায় এত জায়গা থাকতে ফলিস্তিনিকে কনে বাছাই করা হলো?

ইসরায়লেি ইহুদি ইতহিাসবদি ইয়ান প্যাপে তাঁর টনে মথিস অ্যাবাউট ইসরায়লে গ্রন্থে দখেয়িছেনে, ফলিস্তিনিকে বাছাই করার যুক্তি হসিবেে বলা হয়, ‘জনমানবহীন ভূমতিে ভূমহিীন মানুষ স্থানান্তর’। তনিি বলনে, ‘এটি খুবই ভুল। কারণ, ফলিস্তিনিে ইহুদ,ি খ্রষ্টিান ও মুসলমানরা বহু আগে থকেইে ছলিনে। তাঁদরে সহাবস্থানে কোনো সমস্যা ছলি না। কন্তিু যখন স্থানীয় লোকজনকে হটয়িে অভবিাসী ইহুদরিা নজিদেরে বাড়ি বানাতে শুরু করনে, অনকে জায়গায় ফলিস্তিনিরিা উদ্বাস্তু হতে শুরু করনে, তখনই সংঘাত শুরু হয়।’

ফলিস্তিনিকে নর্বিাচন করার আরকেটি প্রধান যুক্তি ঈশ্বররে নর্দিশে। এই বশ্বিাসই জায়নবাদ। ‘তোরা’র আধুনকি ইংরজেি অনুবাদে বলা হয়ছে,ে ‘ঈশ্বর আব্রাহামকে নর্দিশে দনে, তুমি সত্বর তোমার দশে, তোমার মানুষ ও পতিৃভূমরি নবিাস ত্যাগ করো এবং যে ভূমরি দকিে আমি নর্দিশে কর,ি সখোনে যাও।’ এ বাণীই ইহুদদিরে নতুন রাষ্ট্র নর্বিাচনরে প্রধান প্রভাবক হসিবেে কাজ করছে।

ইহুদদিরে জন্য যদি তাদরে আসলইে সহানুভূতি থাকত, তাহলে তারা আরও ভালো জায়গা খুঁজে পতেে পারত, যমেন ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র বা কানাডা, অস্ট্রলেয়িা। সখোনে কোথাও ইহুদি রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিা করলে তাদরে জন্য শান্তপর্িূণ নরিাপদ বাসভূমি করা সম্ভব ছলি। কন্তিু ইউরোপীয়রা যভোবে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রলেয়িায় জবরদখল করে নজিদেরে রাষ্ট্র বানয়িছে,ে সইে মডলেইে তারা ইহুদি রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিার উদ্যোগ নয়ে।

সাধারণ মানুষরে অসহায় বশ্বিাসরে বষিয়টি আমরা বুঝতে পার।ি কন্তিু প্রশ্ন হচ্ছ,ে ব্রটিশি-র্মাকনি নতেৃত্বাধীন সাম্রাজ্যবাদীরা কনে ইহুদি রাষ্ট্র বানানোর জন্য এমন একটি স্থান নর্বিাচনে পৃষ্ঠপোষকতা দলি, যখোনে মানববসতি আছে এবং সখোনে পুরোনোদরে হটয়িে নতুন রাষ্ট্র করতে গলেে সমস্যা-সংঘাত হবইে।

ইহুদদিরে জন্য যদি তাদরে আসলইে সহানুভূতি থাকত, তাহলে তারা আরও ভালো জায়গা খুঁজে পতেে পারত, যমেন ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র বা কানাডা, অস্ট্রলেয়িা। সখোনে কোথাও ইহুদি রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিা করলে তাদরে জন্য শান্তপর্িূণ নরিাপদ বাসভূমি করা সম্ভব ছলি। কন্তিু ইউরোপীয়রা যভোবে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রলেয়িায় জবরদখল করে নজিদেরে রাষ্ট্র বানয়িছে,ে সইে মডলেইে তারা ইহুদি রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিার উদ্যোগ নয়ে। সম্ভাব্য সংঘাতকে তারা নজিদেরে পুঁজি ববিচেনা কর।ে

 প্রথম বশ্বিযুদ্ধে অটোমান বা ওসমান সাম্রাজ্যরে পতনরে পর পুরো অঞ্চল পুরোনো ঔপনবিশেকি শক্তি ভাগাভাগি করে নয়ে। এ ধারাতইে তাদরে জন্য খুঁটি হসিবেে সৃষ্টি হয় সৌদি আরবরে পাশাপাশি ইসরায়লে। ১৯১৭ সালে ব্রটিশি সরকাররে ‘বলেফোর ঘোষণা’য় ফলিস্তিনিে ইসরায়লে রাষ্ট্র প্রতষ্ঠিার ঘোষণা দওেয়া হয়।

দ্বতিীয় বশ্বিযুদ্ধে ইহুদদিরে ওপর ভয়ংকর নর্যিাতনরে পর ১৯৪৮ সালে ফলিস্তিনিদিরে ভূমরি ওপর ইসরায়লে রাষ্ট্ররে প্রতষ্ঠিা করা হয় ইহুদদিরে একটি নরিাপদ বাসভূমি করার কথা বল।ে এভাবে প্রথমে ব্রটিশি ও পরে যুক্তরাষ্ট্র এই অঞ্চলরে ওপর চরি আধপিত্য রক্ষার জন্য দ্বন্দ্ব-সংঘাত চরিস্থায়ী করার ব্যবস্থা নয়ে। মধ্যপ্রাচ্যরে সব মুসলমি রাজতন্ত্রী শক্তকিে পৃষ্ঠপোষকতার বড় কারগিরও তারাই।

প্রশ্ন হচ্ছ,ে এত বছর ধরে জোরজবরদস্তি আর ঘৃণ্য অপরাধ করার পর ইসরায়লে কী পলে? তারা কি ইহুদদিরে জন্য নরিাপদ একটি রাষ্ট্র পয়েছে?ে অথবা কি বশ্বিবাসীর কাছে একটা সম্মানজনক অবস্থান তরৈি করতে পরেছে?ে অবশ্যই না। জাতসিংঘরে বভিন্নি প্রস্তাবে যুক্তরাষ্ট্ররে নকিটতম বন্ধুদরে থকেওে তারা সর্মথন পায় না। একটা র্বণবাদী দখলদার রাষ্ট্র হসিবেে তারা বরং ঘৃণাই কুড়য়িছেে কবেল।

ইসরায়লেরে র্সবশষে গণহত্যা শুরুর পর নতোনয়িাহুকে বাইডনেরে আলঙ্গিন করে সর্মথন ব্যক্ত করা এ সময়রে সবচয়েে অশ্লীল দৃশ্য। আর এর বরিুদ্ধে বশ্বিজুড়ে জাত-ির্ধম-লঙ্গি-শ্রণে-িবয়সনর্বিশিষেে লাখ লাখ মানুষরে প্রতবিাদ মছিলি, গান, কবতিা, ছবি আঁকা হচ্ছে এই সময়রে সবচয়েে সুন্দর দৃশ্য। এই প্রতবিাদী মানুষদরে মধ্যে মুসলমান, খ্রষ্টিান, হন্দিু, প্রকৃতপিূজার,ি অবশ্বিাসীসহ সব বশ্বিাস-অবশ্বিাসরে মানুষই আছনে, আছে ইহুদরিাও। 

যুক্তরাষ্ট্র ইউরোপরে অনকে ইহুদি র্ধমগুরুও ইসরায়লেরে গণহত্যার নন্দিা করছেনে। ইসরায়লেরে ভতেরে বাম সক্যেুলারপন্থী রাজনীতি সংস্কৃতরি মানুষরো বহু বছর ধরইে কঠনি লড়াই করছনে। তাঁদরে দশেপ্রমে নয়িে প্রশ্ন তোলা হয়, নরিাপত্তা অনশ্চিতি হয়, জীবন ঝুঁকরি মধ্যে পড়,ে তারপরও তাঁরা কাজ করছনে।

প্যালস্টোইনরে সঙ্গে ইসরায়লেরে সংঘাতকে তাই খণ্ডতি র্ধমীয় সংঘাত হসিবেে দখো খুবই ভুল। এডওর্য়াড সাঈদ খ্রষ্টিান পরবিারে জন্ম নয়িছেলিনে, তনিি ফলিস্তিনিি এবং উদ্বাস্তু হসিবেে ফলিস্তিনি সংকট নয়িে বশ্বিসভায় সবচয়েে বশেি সোচ্চার ছলিনে। 

ইহুদি পরবিারে জন্ম নওেয়া নোয়াম চমস্কি বহু বছর ধরে ইসরায়লেি দখলদার আগ্রাসী ভূমকিার সমালোচনা করে আসছনে। তনিি নজিওে ইসরায়লেি লবরি আক্রমণরে শকিার। এ রকম অনকেইে আছনে। আসলে সমস্যার মূল বুঝতে গলেে র্বতমান বশ্বি ক্ষমতার কাঠামো দখেতে হব,ে এই (অ)ব্যবস্থার বরিুদ্ধে শক্তশিালী বশ্বি সংহতরি পক্ষে দশেে দশেে কাজ করতে হব।

ক্স আনু মুহাম্মদ শক্ষিক, লখেক এবং ত্রমৈাসকি র্জানাল র্সবজনকথার সম্পাদক