বেজপাড়ায় সহিংস ঘটনায় দুই পক্ষের মামলা, আটক ১

এখন সময়: বুধবার, ৭ ডিসেম্বর , ২০২২ ১৬:০১:১২ pm

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর শহরের বেজপাড়া তালতলায় সহিংস ঘটনায় গত শনিবার রাতে কোতয়ালি থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। বেজপাড়া পিয়ারী মোহন রোডের মৃত আবুল হাশেমের মেয়ে সাবেরা সুলতানা ইভা একটি এবং একই এলাকার ইমান আলীর স্ত্রী জেসমিন বেগম অপর মামলাটি করেছেন। পুলিশ একটি মামলার একজন আসামিকে আটক করেছে।

সাবেরা সুলতানা ইভার দায়ের করা মামলার আসামিরা হলেন, শংকরপুর চোপদারপাড়ার আব্দুল ওহাবের বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত ইকছার মোড়লের ছেলে হানিফ (২০), বেজপাড়া পানির ট্যাংকির পাশের মৃত মুরাদ হোসেন মুন্নার ছেলে আলীমুল হোসেন (১৯) ও বেজপাড়া তালতলার মোড় এলাকার ইমান আলীর ছেলে রাব্বি ওরফে মাছ রাব্বি (২৫)।

মামলায় সাবেরা সুলতানা ইভা উল্লেখ করেছেন, আসামিরা এলাকার চিহ্নিত চোর ও ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য। উল্লিখিত আসামিদের সাথে সাবেরা সুলতানা ইভার ভাই মহিবুল হাসান ইমনের (৩০) পূর্ব শত্রুতা রয়েছে। গত ৩০ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৭টার দিকে তিনি মোটরসাইকেলে করে বেজপাড়া তালতলার মোড়ের বিল্লালের চায়ের দোকানের সামনে যান। এ সময় আসামিরা তার ওপর চড়াও হন এবং তাকে ছুরিকাঘাত ও মারধর করেন। এছাড়া তার প্যান্টের পকেটে থাকা ২০ হাজার ৫৫০ টাকা ছিনিয়ে নেন তারা। পরে চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে আসামিরা পালিয়ে যান।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় মামলা হলে এজাহারভুক্ত আসামি আলীমুল হোসেনকে রোববার সকালে বেজপাড়া কবরস্থান এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে।

অপরদিকে জেসমিন বেগমের মামলার আসামিরা হলেন, বেজপাড়া রানার অফিসের পাশের মনির ছেলে মুন (২৫), বেজপাড়া পিয়ারী মোহন রোডের আরমান (২৬), রতন (৩১), ইভেন (৩২), বারান্দীপাড়ার সত্যরঞ্জন দাস (৩৮) ও সদর উপজেলার হামিদপুরের হৃদয় (২০)।

মামলায় জেসমিন বেগম উল্লেখ করেছেন, আসামিদের সাথে তার ছেলে রাব্বির পূর্ব শত্রুতা রয়েছে। গত ৩০ সেপ্টেম্বর  রাত ৭টার দিকে তার ছেলে রাব্বি বেজপাড়া তালতলার মোড়স্থ বিল্লালের চায়ের দোকানের সামনে গেলে আসামিরা তার ওপর চড়াও হন এবং লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে মারধর করে। এতে রাব্বি আহত হন। মারধর ছাড়াও আসামিরা তার কাছে থাকা ৫ হাজার টাকা কেড়ে নেন। পরে চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে আসামিরা পালিয়ে যান।